Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ৯ অক্টোবর, ২০১৮ ০৬:৩৬

স্বাস্থ্যখাতে বৈষম্য হ্রাসে কাজ করবে টেলিনরের ১৬ প্রতিনিধি

অনলাইন ডেস্ক

স্বাস্থ্যখাতে বৈষম্য হ্রাসে কাজ করবে টেলিনরের ১৬ প্রতিনিধি

আজ নোবেল পিস সেন্টারের সহযোগিতায় টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম ২০১৮-২০১৯- এর জন্য নির্বাচিত ১৬ জন প্রতিনিধির নাম ঘোষণা করেছে টেলিনর গ্রুপ। টেলিনর ইয়ুথ ফোরামের এ বছরের প্রতিনিধিরা ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে স্বাস্থ্যখাতে বৈষম্য চিহ্নিতকরণ ও এর সমাধানে কাজ করবে। 

মানবস্বাস্থ্য ও সংশ্লিষ্ট বিষয় যেমন স্বাস্থ্যসেবা ও এ বিষয়ে তথ্য লাভের সুযোগ এবং ক্ষুধা ও তৃষ্ণা মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের মতো বিষয়গুলো ধারাবাহিকভাবেই জাতীয় ও আঞ্চলিক উন্নয়ন এজেন্ডা ও সংলাপের ক্ষেত্রে তালিকার শীর্ষে ছিলো। অতিসম্প্রতি অনুষ্ঠিত, ২০১৮ সালের জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের আলোচ্যবিষয়গুলোর মধ্যেও অসংক্রামক রোগ এবং সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা অন্যতম প্রধান আলোচ্য বিষয় ছিলো। উন্নয়ন, সামাজিক ক্ষমতায়ন ও মানুষের সমতার ক্ষেত্রে বিষয় হিসেবে স্বাস্থ্যের সদা উপস্থিতি এবং এর সাথে মানবস্বাস্থ্যের প্রত্যক্ষ সম্পর্কের কারণে স্বাস্থ্য বিষয়টিকে এ বছর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামের প্রতিপাদ্য হিসেবে নির্ধারণ করা হয়। 

টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম ২০১৮-২০১৯ - এ নির্বাচিত হওয়ার মাধ্যমে যেসব দেশে টেলিনরের কার্যক্রম রয়েছে সেখানে এ ১৬ প্রতিনিধিকে তরুণ নেতৃত্ব হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশ, ডেনমার্ক, মালয়েশিয়া, নরওয়ে, পাকিস্তান, সুইডেন ও থাইল্যান্ডের ৫ হাজারের বেশি তরুণ মেধাবীদের মধ্য থেকে এ ১৬ জন নির্বাচিত হয়। নির্বাচিত প্রতিনিধিরা এ বছরের ডিসেম্বর থেকে আগামী বছরের মে মাস পর্যন্ত সকল দিক থেকে স্বাস্থ্যখাতের বৈষম্য দূরীকরণের সমাধান উন্নয়নে কাজ করবে। 

এ নিয়ে টেলিনর গ্রুপের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান নির্বাহী সিগভে ব্রেক্কে বলেন, ‘বয়োজ্যেষ্ঠদের যত্নের ক্ষেত্রেই হোক কিংবা প্রান্তিক ও নিম্ন-উপার্জনকারী জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণের সুযোগ নিশ্চিত করতেই হোক; স্বাস্থ্য ও প্রযুক্তির মধ্যে সম্পর্ক স্থাপনে আমরা অনেককিছু অর্জন করতে পারি। আর এক্ষেত্রে, এ বছর টেলিনর ইয়ুথ ফোরামে নির্বাচিত ১৬ তরুণ ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ অবদান আর কারা রাখতে পারবে?’ তিনি আরও বলেন, ‘সম্ভাবনাময় ও শান্তিপূর্ণ ভবিষ্যতের জন্য স্বাস্থ্যখাতে বৈষম্য দূরীকরণ এবং স্বাস্থ্যসেবায় সবার সুযোগ নিশ্চিত করা অবিচ্ছেদ্য অংশ। মোবাইল নেটওয়ার্ক ও প্রযুক্তি এ বিষয়ে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।’

যেসব উদ্যমী তরুণ পৃথিবীতে পরিবর্তন আনতে চায় তাদের জন্য বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্ম টেলিনর ইয়ুথ ফোরাম। এর পাশাপাশি প্ল্যাটফর্মটি, গুরুত্বপূর্ণ সামাজিক প্রতিকূলতায় টেকসই ডিজিটাল সমাধানের উন্নয়নে বিভিন্ন রিসোর্স ও দক্ষতার সাথে এ তরুণদের যুক্ত করবে। 

বিস্তারিত জানতে http://www.telenor.com/youthforum এই ঠিকানায় ভিজিট করা যাবে।

 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য