Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ মে, ২০১৯ ১৪:১০

গাছ পড়ে শহীদ মিনার বিধ্বস্ত: অপসারণে বন বিভাগ-পৌরসভার রশি টানাটানি

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

গাছ পড়ে শহীদ মিনার বিধ্বস্ত: অপসারণে বন বিভাগ-পৌরসভার রশি টানাটানি

ঠাকুরগাঁও পৗরসভার আশ্রমপাড়া শিশু পার্কে ঝড়ে গাছ পড়ে শহীদ মিনারটি ভেঙে গেলেও দীর্ঘ একমাসেও তা অপসারণ করেনি কর্তৃপক্ষ। চলছে শুধু দফতরে চিঠি চালাচালি।

ঠাকুরগাঁও পৌরসভা বলছে, গাছের টেন্ডারের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করতে বন বিভাগকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। আর বন বিভাগ বলছে, এ ধরনের চিঠি পায়নি তারা।

গত ১৬ এপ্রিল রাতে কালবৈশাখী ঝড়ে পৌর শিশু পার্কের শহীদ মিনারের উপর ভেঙে পড়ে শতবর্ষী একটি আমগাছ। এতে শহীদ মিনারটি ভেঙে যায়। ঘটনার এক মাস পেরিয়ে গেলেও ভেঙে পড়া আমগাছ অপসারণ ও শহীদ মিনারটি সংস্কার করেনি পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। পৌরসভার উদাসীনতার কারণে ভেঙে পড়া আমগাছটি সেখানেই পড়ে আছে।

পৌরসভার বাসিন্দা প্রবীণ শিক্ষাবিদ প্রফেসর মনতোষ কুমার দে বলেন, আমাদের বাঙ্গালী জাতীয়তার সঙ্গে শহীদ মিনার কথাটি ওঁকপ্রোতভাবে জড়িত। সেখানে শহরের প্রাণকেন্দ্রে একটি শহীদ মিনার এতদিন ধরে ভেঙে পড়ে আছে তা ভাবতেও অবাক লাগছে।

পৌর শহরের আশ্রম পাড়ার বাসিন্দা হেলেন চৌধুরী বলেন, শহীদ মিনারে আম গাছ পড়ে থাকায়, শিশুরা সেখানে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হতে পারে। অন্তত শিশুদের কথা চিন্তা করে হলেও পৌর কর্তৃপক্ষের উচিৎ গাছটি অপসারণ করা।

স্থানীয় বাসিন্দা আলাল বলেন, এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে ইতোপূর্বে পৌর মেয়র বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। তাৎক্ষণিক পৌর মেয়র জানান, গাছ কাটার অনুমতি তাদের নেই। এটা বন বিভাগের সম্পত্তি।

এ ব্যাপারে ঠাকুরগাঁও পৌরসভার মেয়র মির্জা ফয়সাল আমিন বলেন, পৌরসভার পক্ষ থেকে বন বিভাগকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়েছে। তাদের অনুমতি পেলে দ্রুত সময়ে টেন্ডারের মাধ্যমে গাছ বিক্রয় করে শহীদ মিনারের কাজ করা হবে।

ঠাকুরগাঁও বন বিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ আকন্দ বলেন, আশ্রমপাড়া শিশু পার্কের গাছের বিষয়ে কোনও চিঠি পায়নি। চিঠি পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য