শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ অক্টোবর, ২০২০ ১৯:১৭
আপডেট : ২৫ অক্টোবর, ২০২০ ২২:১৫

সাঁথিয়ায় প্রকাশ্য অস্ত্র ঠেকিয়ে অপহরণ, মামলা নেয়নি থানা

পাবনা প্রতিনিধি:

সাঁথিয়ায় প্রকাশ্য অস্ত্র ঠেকিয়ে অপহরণ, মামলা নেয়নি থানা
মাসুদ রানা

সাঁথিয়া থানার মাত্র ৫০ গজ দূরে প্রকাশ্য দিবালোকে অস্ত্রের মুখে এক ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে মারপিট করেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলে থানা মামলা গ্রহণ করেনি। মামলা করলে হত্যা করার হুমকি দিচ্ছে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা।

গত ১৯ অক্টোবর সাঁথিয়া থানায় অভিযোগ দেয়ার পর ৬ দিন অতিবাহিত হলেও মামলা আমলে নেয়নি সাঁথিয়া থানা পুলিশ।

সাঁথিয়া উপজেলার হাড়িয়াকাহন গ্রামের তোয়াজ উদ্দিনের ছেলে মাসুদ রানা (৪৫) গত ১৯ অক্টোবর সাঁথিয়া উপজেলা সদরে আসে তার ভগ্নিপতি ওসমান গণিকে ব্যাংকের মাধ্যামে ঢাকায় টাকা পাঠানোর জন্য। বেলা ১২ টার দিকে মাসুদ রানা সাঁথিয়া পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে (থানা থেকে ৫০ গজ দূরে) পৌছালে একদল সন্ত্রাসী মাসুদ রানাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে উঠিয়ে নিয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা তাকে উপজেলার নন্দনপুরের সাইফুল ইসলামের বসত বাড়ির উত্তর পাশের আশরাফুল আলমের ডিশ লাইন অফিস ঘরে আটকে রাখে মাসুদ রানার কাছে থাকা ৫৭ হাজার ২’শ টাকা কেড়ে নিয়ে আশরাফুলের নির্দেশে একদল যুবক তাকে মারপিট করে। এর পর সন্ত্রাসীরা গুরুতর জখম মাসুদ রানাকে সাঁথিয়া উপজেলা যুবলীগ সভাপতি টুটুলের তেঁথুলিয়া গ্রমের বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানেও যুবলীগ নেতা টুটুল মারপিট করে মাসুদ রানাকে। 

এ ব্যাপারে সাঁথিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বলেন, বিষয়টি এলাকায় মীমাংসা হবে তাই মামলা রেকর্ড করা হয়নি। 

অস্ত্রের মুখে প্রকাশ্য দিবালোকে অপহরণের ঘটনার তদন্ত বা মামলা গ্রহণ না করে থানা পুলিশ শালিশী বৈঠকে মীমাংসার কথা বলায় জনমনে ভীতির সৃষ্টি হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

BP

আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর