শিরোনাম
প্রকাশ : ৩০ অক্টোবর, ২০২০ ১৭:৫২

পটুয়াখালীতে কৃষি কর্মকর্তাকে মারধর করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

পটুয়াখালীতে কৃষি কর্মকর্তাকে মারধর করলেন ইউপি চেয়ারম্যান

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তাকে প্রকাশ্যে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে কনকদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহিন হাওলাদারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় চেয়ারম্যানকে একমাত্র আসামি করে বৃহস্পতিবার মামলা করেছেন কৃষি কর্মকর্তা।

মারধরের শিকার ব্যক্তির নাম আনছার উদ্দিন মোল্লা। তিনি বাউফল উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে চেয়ারম্যান তাকে ডেকে নিয়ে প্রকাশ্যে চর থাপ্পর মেরেছেন বলে জানা গেছে।

আনছার উদ্দিন মোল্লা মামলার এজাহারে উল্লেখ করেছেন, বিকেল ৫টার দিকে সরকারি কাজের উদ্দেশ্যে কনকদিয়া বাজারের বাণী ফার্মেসির সামনে থেকে যাওয়ার সময় কনকদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহিন হাওলাদার তাকে ডেকে নেন।

এরপর চেয়ারম্যানকে সালাম দিতেই পূর্ব বিরোধের জেরে তিনি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার উদ্দেশে গালাগাল করতে থাকেন। একপর্যায়ে প্রতিবাদ করলে চেয়ারম্যান তাকে প্রকাশ্যে লাথি ও কিল-ঘুষি মারেন।

আনছার উদ্দিন মোল্লা বলেন, ঘটনার পরে আমার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সুপারিশে বাউফল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ বিষয়ে কনকদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা শাহিন হাওলাদার বলেন, মামলা হওয়ার মতো কোনো ঘটনাই ঘটে নাই। তবে একটি সারের দোকানের তদন্ত রিপোর্ট দেওয়ার বিষয়ে আমি তাকে জিজ্ঞাসা করায় আনছার উদ্দিন মোল্লা আমাকে বলেন, আপনাকে বলবো আপনি কে? এরপর তার সাথে আমার বাকবিতণ্ডা হয়েছে মাত্র। মারধরের প্রশ্নই আসে না। কী ঘটনায় মামলা হলো আমার বোধগম্য নয়।

বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, মামলা দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পটুয়াখালী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ির উপ-পরিচালক হৃদয়েশ্বর দত্ত বলেন, একজন সরকারি কর্তকর্তাকে চেয়ারম্যান প্রকাশ্যে আঘাত করবেন, এটা ঠিক হয়নি। যদি ওই কর্মকর্তা চেয়ারম্যানের সাথে খারাপ আচরণ করে থাকতো তাহলে উপজেলা কর্মকর্তা অথবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং উপজেলা চেয়ারম্যানকেও জানাতে পারতেন তিনি। তা না করে তিনি যেটা করেছেন, সেটা অন্যায়। এর আইনগত ব্যবস্থা চাই আমরা।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর