শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৮:১৫
প্রিন্ট করুন printer

ধুনটে শিশুকে গলা কেটে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া:

ধুনটে শিশুকে গলা কেটে হত্যা

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় পাচঁ বছরের শিশু তৌহিদ সরকারকে বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত তৌহিদ সরকার উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের মালেয়শিয়া প্রবাসী আব্দুল গফুর সরকারের ছেলে।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তৌহিদের জবাই করা মৃতদেহ তাঁর বাবার ঘরের মেঝে থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরে শিশুটির মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, আব্দুল গফুর দীর্ঘদিন ধরে মালেয়শিয়া অবস্থান করেন। গ্রামের বাড়িতে মা দুলালী বেগমের কাছে থাকতো তৌহিদ। শুক্রবার সকালের দিকে বাড়ির লোকজন কাজের উদ্দেশ্যে বাইরে যায়। এ সময় তৌহিদের মা বাড়ির অদুরে মাঠে গরুর জন্য ঘাস কাটতে যায় এবং তৌহিদ বাড়িতে ঘরের মধ্যে ঘুমিয়ে ছিল। এ অবস্থায় কে বা কারা ওই ঘরের ভেতর প্রবেশ করে তৌহিদ সরকারকে বটি দিয়ে জবাই করে হত্যার পর মৃতদেহ মেঝেতে ফেলে রেখে যায়। পরে বাড়িতে ফিরে তৌহিদের মা ঘরের মেঝেতে ছেলের লাশ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দিয়ে ওঠে। এ সময় প্রতিবেশী লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে থানায় খবর দেয়।

নিহত তাওহিদের মা দুলালী খাতুন বলেন, সকালে আমি শ্বাশুড়ির সঙ্গে বাড়ির সামনে আবাদি জমিতে কাজ করছিলাম। এসময় বাড়িতে কেউ ছিল না। তখন তাওহিদ আমাদের ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। আমি ঘরে ফিরে তাওহিদকে গলাকাটা রক্তাক্ত অবস্থায় পরে থাকতে দেখি। তখনই চিৎকার দিয়ে ছেলেকে কোলে নিয়ে ঘর থেকে বের হই। 

এক প্রশ্নের জবাবে দুলালী খাতুন বলেন, কে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে, তা বলতে পারছি না। 

শিশু তাওহিদের চাচা সোলায়মান সরকার বলেন, আবাদি জমিতে কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিলাম। খবর পেয়ে গলাকাটা অবস্থায় ভাতিজাকে নিয়ে দ্রুত হাসপাতালে যাই। 

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. পিয়াস পারভেজ বলেন, শিশু তাওহিদের গলা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কাটা হয়েছে। হাসপাতালে আনার পূর্বেই সে মারা গেছে। 

ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে শিশুটিকে হত্যার কাজে ব্যবহৃত রক্তমাখা বটি উদ্ধার করা হয়েছে। এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উন্মোচনের চেষ্টা চলছে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর