১৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৫:৪৪

ঝিনাইদহে প্রতিপক্ষের মারধরে মেম্বার প্রার্থীর মৃত্যুর অভিযোগ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহে প্রতিপক্ষের মারধরে মেম্বার প্রার্থীর মৃত্যুর অভিযোগ

মেম্বার প্রার্থীর মৃত্যুতে স্বজনদের আহাজারি।

ঝিনাইদহের ফুরসন্দি ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় মাহমুদুল হক পলাশ নামে এক মেম্বার প্রার্থীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এসময় ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন পুলিশের এক কর্মকর্তা।

নিহত পলাশ টিকারী গ্রামের লুলু মুন্সির ছেলে। তিনি এবারের নির্বাচনে ওই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ফুটবল প্রতীকের মেম্বার প্রার্থী ছিলেন। বুধবার রাতে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার টিকারী বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বুধবার রাতে ওই ইউনিয়নের আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু সাঈদ শিকদারের নির্বাচনী প্রচারণার সময় লক্ষীপুর গ্রামে ২ মোটরসাইকেল ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

এরই প্রতিবাদে পাল্টা রাতেই টিকারী বাজারে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর শহিদুল ইসলাম শিকদারের নির্বাচনী কার্যালয় ও ২টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। সেসময় ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী মাহমুদুল হক পলাশকে মারধর করার অভিযোগ ওঠে। সকালে পলাশ নিজ বাড়িতে মারা যান।

খবর পেয়ে নাড়িকেলবাড়ীয়া পুলিশ ক্যাম্পে এসআই তৌহিদুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে যায়। সেখানে নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা উত্তেজিত হয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালায়। তাৎক্ষণিক তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সদর থানার ওসি শেখ মো. সোহেল রানা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পরিস্থিতি শান্ত রাখতে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করে রাখা হয়েছে। তবে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে আহতের ঘটনায় নৌকা সমর্থকের দুইজনকে আটক করা হয়েছে। আরও আটকের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে।

উল্লেখ্য, চতুর্থ ধাপে আগামী ২৬ ডিসেম্বর সদর উপজেলার ১৫ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ২৭ হাজার ৬৮৮ জন। আর নারী ভোটার ১ লাখ ২৫ হাজার ৮১২ জন।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর