শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০১৯ ২৩:১৫

এবার নেদারল্যান্ডসে হামলা, নিহত ৩

প্রতিদিন ডেস্ক

এবার নেদারল্যান্ডসে হামলা, নিহত ৩

নেদারল্যান্ডসের ইউট্রেখট শহরে যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুক হামলায় তিনজন নিহত হয়েছেন। গতকাল (সোমবার) স্থানীয় সময় বেলা পৌনে ১১টার দিকে অক্টোবর ২১ স্কয়ারের কাছে এ হামলায় বেশ কয়েকজন আহতও হয়েছেন। স্থানীয় কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বিবিসি ও রুশ সংবাদমাধ্যম আরটি এ তথ্য জানিয়েছে।

হামলার পেছনে সন্ত্রাসী উদ্দেশ্য রয়েছে বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। পুলিশ জানায়, ইউট্রেখট শহরে এক ব্যক্তি ট্রামের ভিতর এলোপাতাড়ি গুলি চালালে বেশ কয়েকজন আহত হন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটে বলেছেন, এ ঘটনায় তিনি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। হামলার পর সরকারের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা সংকটকালীন জরুরি বৈঠকে বসছেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ডাচ্্ রেডিও বলেছে, হেগে সরকারের বিভিন্ন দফতরে নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। অক্টোবর ২১ স্কয়ারের পাশের জংশনে ট্রামে এ হামলার ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে দেশটির জরুরি সার্ভিস ও অ্যান্টি টেররিজম ইউনিটের সদস্যদের মোতায়েন করা হয়েছে। ওই এলাকায় ট্রাম চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান বলেছে, হামলার স্থানে তিনটি হেলিকপ্টার মোতায়েন করেছে নেদারল্যান্ডস সরকার। পুলিশের মুখপাত্র জুস্ট ল্যানশ্যাগে বলেছেন, একটি ট্রামে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে হেলিকপ্টার পাঠানো হয়েছে। ট্রামের ভিতর গুলি করার পর বন্দুকধারী গাড়ি নিয়ে পালিয়ে যায়। তাকে এখনো আটক করা সম্ভব হয়নি। নিরাপত্তার কারণে স্থানীয় প্রশাসন নগরীতে সব ধরনের ট্রেন ও ট্রাম চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। বিদ্যালয়গুলোর সদর দরজা বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুলিশের ওই মুখপাত্র বলেন, ‘একটি ট্রামের ভিতর বেশ কয়েকবার গুলি করা হয়েছে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। তিনটি হেলিকপ্টার ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে। তবে এখনো কাউকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।’ ঘটনাটিকে একটি ‘সন্ত্রাসী হামলা’ বলে মনে করছে সন্ত্রাস-দমন পুলিশ। ইউট্রেখট শহরে অস্থায়ীভাবে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, সশস্ত্র পুলিশ অক্টোবর ২১ স্কয়ারের কাছের জংশনের লাগোয়া সড়কের পাশে একটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে। হামলার এ ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা এনওএসকে এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, তিনি একজন আহত নারীকে দেখেছেন। তার হাতে এবং কাপড়ে রক্ত ছিল। ওই প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘আমি তাকে আমার গাড়িতে করে নিয়ে আসি। যখন পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে তখন তার জ্ঞান ছিল না।’ এ ঘটনায় কতজন হতাহত হয়েছেন তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনাস্থল এড়িয়ে চলাচলের জন্য স্থানীয়দের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেল আরটিভি বলেছে, তিনি একজন নারীকে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেছেন। ঘটনাস্থল থেকে অনেক মানুষকে দৌড়ে পালাতে দেখেছেন তিনি। দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী ইউট্রেখট ইউনিভার্সিটি মেডিকেল সেন্টারকে আহতদের জরুরি সেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এক প্রত্যক্ষদর্শী দেশটির স্থানীয় নিউজ আউটলেট এনইউএনএলকে বলেন, ‘একজন বন্দুকধারী আচমকা এলোপাতাড়ি গুলি শুরু করে।’ তবে দেশটির এডিএনএল নামের আরেকটি সংবাদমাধ্যমে প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে জানিয়েছে, চারজন বন্দুকধারী ট্রাম স্টেশনের পাশে এক নারীর ওপর অতর্কিত বন্দুক হামলা শুরু করে। নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চ শহরে দুটি মসজিদে ৫০ জনকে হত্যা করার তিন দিন পরই নেদারল্যান্ডসে এ সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটল।

নেদারল্যান্ডসের চতুর্থ বৃহত্তম শহর ইউট্রেখট তার সুন্দর ক্যানাল এবং বৃহত্তর ছাত্র জনসংখ্যার জন্য পরিচিত। এ শহরে বন্দুকের গুলিতে খুনের ঘটনা বিরল।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর