শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৫৪

সড়কে অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা

চিকিৎসককে হয়রানির অভিযোগ বিএমএর

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলমান লকডাউনে দেশের বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা কর্মস্থলে যাওয়ার পথে ‘নিগ্রহ’ ও ‘হয়রানির’ শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ)। গতকাল সংগঠনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন ও মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ জানিয়ে এই বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের হস্তক্ষেপ চেয়েছে বিএমএ। পুলিশ ও প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সদস্যদের দ্বারা চিকিৎসক অযাচিতভাবে হেনস্তার শিকার হওয়ায় তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানিয়েছে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) শাখা। গতকাল সংগঠনের আহ্‌বায়ক অধ্যাপক আবু নাসার রিজভী ও সদস্য সচিব ডা. আরিফুল ইসলাম জোয়ারদার টিটো স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়। বিএমএ তার প্রতিবাদে জানিয়েছে, গত রবিবার এলিফ্যান্ট রোডের ঘটনার দ্রুত তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত এবং বিভাগীয় শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানানো হয়। কেবল মুভমেন্ট পাস ও প্রাতিষ্ঠানিক আইডি কার্ডের নামে পুলিশের এমন আচরণ কাম্য নয়। এ ঘটনায় চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা আতঙ্কগ্রস্ত ও হতাশ হয়ে পড়ছেন। ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকতে সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধও জানিয়েছে বিএমএ। স্বাচিপের বিএসএমএমইউ শাখা তার প্রতিবাদে জানিয়েছে, ডাক্তাররা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা মোকাবিলায় লড়ে যাচ্ছেন, ঠিক তখনই হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে বাসায় ফেরার পথে পুলিশ ডা. জেনির গাড়ি থামিয়ে তার কাছে পরিচয়পত্র দেখতে চায়। এ সময় নিজের পরিচয় ও গাড়িতে থাকা বিএসএমএমইউর লোগো সংবলিত স্টিকার, পরিচালক কর্তৃক ইস্যুকৃত পাস ও বিএসএমএমইউর লোগোসহ ডাক্তারের নামাঙ্কিত অ্যাপ্রন দেখলেও এসব কিছুকে ভুয়া বলে পুলিশ ডা. জেনিকে ইচ্ছাকৃতভাবে চরম হেনস্তা করেছে।

 

এই বিভাগের আরও খবর