শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১১:৩৪
আপডেট : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৬:৫৫

মালয়েশিয়া বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাষা শহীদদের স্মরণ

মালয়েশিয়া প্রতিনিধি

মালয়েশিয়া বাংলাদেশ দূতাবাসে ভাষা শহীদদের স্মরণ

মালয়েশিয়া কুয়ালালামপুরস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করা হয়েছে। 

আজ শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল ৯ টায় অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিতকরণ করেন রাষ্ট্রদূত মহ. শহীদুল ইসলাম। এরপর ভাষা শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা ও তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

পরে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে দূতাবাসে নির্মিত অস্থায়ী শহীদ বেদিতে প্রথমেই পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাষ্ট্রদূত মহ. শহীদুল ইসলামের নেতৃত্বে দূতাবাসের সকল কর্মকর্তারা। 

এরপর একে একে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়া, যুবলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগসহ সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও কমিউনিটি সংগঠনসহ নানা পেশাজীবী প্রবাসী বাংলাদেশিরা পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ৫২'র ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ।   

পরে দূতাবাসের হলরুমে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলের উদ্যেশে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের মহামান্য রাষ্ট্রপতি জনাব মোঃ আব্দুল হামিদ'র বানী পাঠ করেন বাংলাদেশ হাইকমিশনের ডিফেন্স এডভাইজার কমোডর মুসতাক আহমেদ। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন  ডেপুটি হাইকমিশনার ও দূতালয় প্রধান মিস ওয়াহিদা আহমেদ। 

পররাষ্ট্র মন্ত্রীর বানী পাঠ করেন কাউন্সেলর (শ্রম) জনাব মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন জনাব মোঃ মশিউর রহমান তালুকদার, কাউন্সেলর (পাসপোর্ট এন্ড ভিসা) এবং সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর বানী পাঠ করেন জনাব মোঃ রাজিবুল আহসান, কাউন্সেলর (কমার্সিয়াল) । 

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত মহ. শহীদুল ইসলাম বলেন, মাতৃভাষা প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম ও জীবন দেওয়ার ইতিহাস একমাত্র গর্বিত বাঙালি জাতিরই আছে। এই ভাষা সংগ্রামের অর্জনেই লুকিয়ে ছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতা যা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা অর্জন করি। বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের ভাষা সংগ্রামের রক্তাক্ত অধ্যায় একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। বর্তমানে তারই নেতৃত্বে ইতিহাস আর ঐতিহ্যকে সমুন্নত রেখে বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রগতি আজ দৃশ্যমান। তিনি দেশের উন্নয়নে প্রবাসীদের অবদানের কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন। 

আলোচনা সভায় মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগ ও দলের অঙ্গসংগঠনসহ দেশটিতে কর্মরত ইলেক্ট্রনিকস/ প্রিন্ট মিডিয়ার সংবাদ কর্মী, সামাজিক, রাজনৈতিক সংগঠন ও হাইকমিশনের কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের পরিবার ছাড়াও মালয়েশিয়াস্থ প্রবাসী বাংলাদেশের নাগরিক ও বিভিন্ন সংগঠন অংশগ্রহণ করেন।


বিডি প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য