শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:১৫

ব্যস্ত নগরীতে দিনের বেলা চলছে ভারী যানবাহন

কাজী শাহেদ, রাজশাহী

ব্যস্ত নগরীতে দিনের বেলা চলছে ভারী যানবাহন

রাজশাহী নগরীর ভিতরের সড়কগুলোতে আইন লঙ্ঘন করে চলছে ওভারলোডেড মালবাহী ট্রাক। এতে মেয়াদের আগেই ভেঙে পড়ছে সড়কের অবকাঠামো। পাশাপাশি নগরীতে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট, প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। রাজশাহী নগর পুলিশের (আরএমপি) অধ্যাদেশ অনুযায়ী দিনের বেলা ভারী যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও ট্রাফিক পুলিশের সামনেই দিনরাত নির্বিঘ্নে চলছে এসব যান। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রাজশাহী জেলার পদ্মায় অন্তত ১০টি বালুমহালের একেকটি থেকে প্রতিদিন অন্তত ৩০০ ট্রাক বালু নগরীর বিভিন্ন গন্তব্যে যাচ্ছে। দশ চাকার ট্রাকগুলো বহন করছে অন্তত ২৫ টন করে বালু। তাছাড়া পাঁচ টন ধারণক্ষমতার ট্রাকে বালি বহন করা হচ্ছে ১২ থেকে ১৫ টন করে। ওভারলোডেড এসব ট্রাক বেপরোয়া গতিতে চলছে নগরীর ভিতরের সড়ক-মহাসড়কে। ফলে অহরহ দুর্ঘটনা ঘটছে। ভারী ট্রাকের কারণে নষ্ট হচ্ছে এ এলাকার সড়ক-মহাসড়কগুলো। পেভমেন্ট ও শোল্ডার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, সড়কজুড়ে সৃষ্টি হচ্ছে ছোট-বড় অসংখ্য গর্ত। বারবার সংস্কারেও কাজ না হওয়ায় জোড়াতালি দিয়ে কোনোরকমে সচল রাখা হচ্ছে এসব সড়ক। এ অবস্থার কথা স্বীকার করে রাজশাহী সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শামসুজ্জোহা বলেন, রাস্তার নকশা করা হয় লোড ক্যাপাসিটির ওপর ভিত্তি করে। রাস্তার একটি অন্যতম ড্যামেজ ফ্যাক্টর ওভারলোড। এসব যানবাহনের চাপ বেড়ে গেলে ড্যামেজ ফ্যাক্টরও বেড়ে যায়। ওভারলোড নিয়ন্ত্রণ না করা গেলে রাস্তার কাক্সিক্ষত স্থায়িত্ব পাওয়া সম্ভব নয়। নগরীতে আইন লঙ্ঘন করে ওভারলোডেড যান চলাচলের বিষয়টি স্বীকার করেছেন রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক। তিনি বলেন, ওভারলোডেড বালুর ট্রাক ও ডাম্পার চলাচলে নগরীর সড়কগুলোর ওপর অতিরিক্ত চাপ পড়ছে। নির্দিষ্ট পথে বালুর ট্রাকগুলো চলাচল করলে অন্তত নগরীর সড়কগুলো বেঁচে যায়। দিনের বেলায় বালুর ট্রাক নগরে প্রবেশে পুলিশের নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করা জরুরি বলে উল্লেখ করেন তিনি। এদিকে, নগরীর বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে দেখা গেছে, দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সামনে দিয়েই নির্বিঘেœ চলাচল করছে বালুবাহী ট্রাক। অন্যান্য নির্মাণসামগ্রীবাহী ট্রাকও চলছে দেদার। কিন্তু এসব ট্রাকের দিকে নজর না দিয়ে মোটরসাইকেল ধরপাকড়ে ব্যস্ত পুলিশ। অভিযোগ আছে, পুলিশকে ম্যানেজ করেই নগরীর ভিতর চলছে ভারী সব যানবাহন। ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবলদের টাকা আদায় করতে দেখা গেছে দিনের বেলায় নগরীর ব্যস্ততম সড়কে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাক থেকে। আরএমপি অধ্যাদেশ অনুযায়ী, সকাল ৮টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত নগরীর রাস্তা দিয়ে ট্রাকসহ ভারী যানবাহন চলাচলের সুযোগ নেই। এ বিষয়ে নগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, দিনের বেলা নগরীর ভিতরে যাতে ট্রাক চলাচল করতে না পারে, সে জন্য তারা সবসময় তৎপর থাকেন। অনেকে পাশের জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জ অথবা নওগাঁ যাওয়ার কথা বলে নগরীর ভিতরে থেকে যায়। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাও নেওয়া হয়।


আপনার মন্তব্য