শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০৪

সাকিবকে রেখেই স্কোয়াড

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সাকিবকে রেখেই স্কোয়াড
মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলনে মাশরাফি রুবেলরা —বাংলাদেশ প্রতিদিন

সাকিব আল হাসান এশিয়া কাপে খেলবেন কিনা তা নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল। এশিয়া কাপের আগেই অস্ত্রোপচার করাতে চেয়েছিলেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। কিন্তু বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন চেয়েছিলেন দলের সেরা তারকা খেলুক এশিয়া কাপে। অবশেষে গতকাল সাকিবকে রেখেই এশিয়া কাপের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

ঘোষিত ১৫ সদস্যের দলে জায়গা হয়নি ওপেনার এনামুল হক বিজয়, সাব্বির রহমান ও পেসার আবু জায়েদ রাহীর। দলে প্রবেশ করেছেন মোহাম্মদ মিথুন এবং আরিফুল হক। দলে টিকে রয়েছেন মামলায় জড়িয়ে পড়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সিরিজে সুবিধা করতে পারেননি সাব্বির রহমান। ওয়ানডে সিরিজের তিন ম্যাচে তার স্কোর ৩, ১২, ১২। এছাড়া মাঠের বাইরের বিতর্ক তো ছিলই। সব মিলে সাব্বিরের বাদ পড়া অনিবার্যই ছিল। এনামুল হক বিজয় ওয়েস্ট সিরিজ সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি। ক্যারিবীয় দ্বীপে ওয়ানডে সিরিজে তামিম ইকবাল যেখানে রানের বন্যা বইয়ে দিয়েছেন, সেখানে বিজয় ছিলেন একেবারেই অন্যরকম। তামিম তিন ম্যাচে করেছেন ১৩০*, ৫৪, ১০৩। আর বিজয়ের স্কোর ছিল ০, ২৩, ১০। অধিনায়ক মাশরাফি বিজয়কে সুযোগ করে দিলেও তা কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। সে কারণেই এশিয়া কাপের দলে জায়গা হয়নি।

‘এ’ দলের হয়ে আয়ারল্যান্ড সফরে দারুণ ব্যাটিং করেছেন মোহাম্মদ মিথুন। ওয়ানডেতে দুটি এবং টি-২০ সিরিজে একটি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন এই ওপেনার। দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ের পুরস্কার হিসেবে এশিয়া কাপের দলে সুযোগ পেয়েছেন তিনি। আয়ারল্যান্ড সফরে সৌম্য সরকারও দারুণ ব্যাটিং করেছেন। কিন্তু দলে জায়গা হয়নি এই ওপেনারের।

বাংলাদেশ দলে অনেক দিন থেকেই ভালো ওপেনিং জুটি নেই। একপ্রান্তে তামিম ইকবাল ধারাবাহিকভাবে রান করে চলেছেন অন্য প্রান্তে তাকে সঙ্গ দিতে পারছেন না কেউ। তবে ক্যারিবীয়দের বিরুদ্ধে সবশেষ টি-২০ সিরিজে তার সঙ্গে ওপেনিংয়ে দারুণ ব্যাটিং করেছেন লিটন কুমার দাস। তিন ম্যাচে লিটনের একটি হাফ সেঞ্চুরিও আছে। সে কারণেই আগের সিরিজে ওয়ানডে দলে না থাকলেও এবার ফিরেছেন। এশিয়া কাপে তামিমের সঙ্গী হিসেবে লিটন কিংবা মিথুনের মধ্যে যে কাউকে নিশ্চিন্তে বেছে নিতে পারেন কোচ স্টিভ রোডস।

লেট মিডল অর্ডারে দ্রুত রান তোলার জন্য দলে নেওয়া হত সাব্বির রহমানকে। কিন্তু রাজশাহীর এই ক্রিকেটার প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি। তবে তার জায়গায় নেওয়া হয়েছে উত্তরাঞ্চলের আরেক ক্রিকেটার আরিফুল হককে।

বরাবরের মতোই দলের কাণ্ডারী হিসেবে রয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। নড়াইল এক্সপ্রেসের সহকারী হিসেবে রয়েছেন সাকিব আল হাসান। এছাড়া ভরসার প্রতীক হয়ে থাকা বাকি তিন সিনিয়র তামিম, মুশফিক, মাহমুদুল্লাহ তো আছেনই।

পেস আক্রমণে মাশরাফি ছাড়াও রয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন ও আবু হায়দার রনি। স্পিনে সাকিবকে সহযোগিতা করতে রয়েছেন নাজমুল ইসলাম অপু ও মেহেদী হাসান মিরাজ।

কোচ স্টিভ রোডস ওয়েস্ট ইন্ডিজে প্রথম অ্যাসাইনমেন্টে সফল হলেও নিজের পছন্দ মতো ক্রিকেটারদের তিনি নিতে পারেননি। যাদেরকে পেয়েছেন তাদেরকে নিয়েই কাজ করেছেন। তবে এশিয়া কাপের আগে শক্তিশালী দল গঠনের লক্ষ্যে ৩১ সদস্যের প্রাথমিক দল থেকে তিনি বেছে নিয়েছেন ১৫ জনকে। এই দল নিয়েই এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

১৫ সেপ্টেম্বর টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে বাংলাদেশ খেলবে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে। ২০ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দল খেলবে সুপার-৪ এ। তারপর সুপার-৪ থেকে শীর্ষ দুই দল ২৮ সেপ্টেম্বর দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফাইনালে মুখোমুখি হবে।


আপনার মন্তব্য