Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ মার্চ, ২০১৯ ১১:৪৫
আপডেট : ২৪ মার্চ, ২০১৯ ১২:২৫

পোলিং এজেন্ট নেই সরকার বিরোধীদের

বরিশালের ভোট কেন্দ্রগুলো ফাঁকা, অলস সময় কাটাচ্ছেন সংশ্লিস্টরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালের ভোট কেন্দ্রগুলো ফাঁকা, অলস সময় কাটাচ্ছেন সংশ্লিস্টরা
বরিশালের উজিরপুর উপজেলার শিকারপুর ইউনিয়নের জিজি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র

তৃতীয় ধাপে বরিশালের ৭টি উপজেলায় চলছে ভোট গ্রহণ। রবিবার সকাল ৮টায় কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে শুরু হয় ভোট গ্রহণ। কিন্তু ভোটার না থাকার কারনে অসল সময় কাটাচ্ছেন ভোট গ্রহণ সংশ্লিস্টরা। 

বরিশালের উজিরপুর উপজেলার শিকারপুর ইউনিয়নের জিজি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল ৮টা ৫ মিনিট পর্যন্ত কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট পাওয়া যায়নি। ওই কেন্দ্রের ৮টি বুথে সকাল সোয়া ৮টা পর্যন্ত কোন ভোট ব্যালট বাক্সে পড়েনি।  ভোটার উপস্থিতি না থাকার কোন কারন জানাতে পারেননি ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা। 

একই উপজেলার জয়শ্রী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ৭টি বুথের মধ্যে সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত দুটি বুথে কোন ভোট পড়েনি। একটি বুথে একজন, একটি বুথে ৩জন এবং একটি বুথে ৪০জনের ভোট জমা হয়। এই কেন্দ্রেও ভোটারের তেমন কোন উপস্থিতি দেখা যায়নি। ভোটার উপস্থিতি না থাকার কারন হিসেবে ভোটাররা বিগত দিনের ভোট পদ্ধতিকে দায়ী করেছেন। 

এদিকে, এই উপজেলায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বিদায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান ইকবাল নির্বাচনের আগের রাতে তার পোলিং এজেন্টদের ভয়ভীতি দেখানো এবং রবিবার সকালে তার এজেন্টদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন। একই অভিযোগ করেছেন এই উপজেলার স্বতন্ত্র প্রার্থী জাসদ নেতা আবুল কালাম আজাদ বাদল। 

ভোটের সুষ্ঠু সুন্দর পরিবেশ বজায় রাখতে বরিশালের প্রতিটি উপজেলায় একজন করে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, প্রতি ৩ ইউনিয়নে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ৩ প্লাটুন করে বিজিবি, পর্যাপ্ত সংখ্যক পুলিশ, র‌্যাব ও আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। তবে এই কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ভোটারদের মাঝে আস্থার সৃস্টি করতে পারেনি। 

রবিবার বরিশালের ৯টি উপজেলায় ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও গৌরনদী ও আগৈলঝাড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান এবং পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী হওয়ায় তাদের ইতিমধ্যে নির্বাচিত ঘোষনা করেছে কমিশন। এ কারণে এই দুই উপজেলায় কোন ভোট গ্রহন হচ্ছেনা। 

এছাড়া বরিশাল সদর, বাকেরগঞ্জ, মুলাদী ও বানারীপাড়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীরা চেয়ারম্যান হয়েছেন বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায়। বানারীপাড়া এবং বাবুগঞ্জে মহিলা আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। 

আজকের নির্বাচনে উজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ৩জন, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন, হিজলায় চেয়ারম্যান পদে ৩জন, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন, বাবুগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে ৪ জন ও পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫জন, বাকেরগঞ্জে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন, মুলাদীতে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন এবং সদর উপজেলায় পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২জন এবং বানারীপাড়ায় পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩জন প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। 

জেলার ৭ উপজেলায় মোট ভোটার ১০ লাখ ৬২ হাজার ৭৩৫জন। ৭ জেলায় ৪৮৫টি কেন্দ্রে ২ হাজার ৮৩৭টি ভোট কক্ষ রয়েছে। 

 


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ তাফসীর


আপনার মন্তব্য