শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২০:০৯

পটুয়াখালীতে যুবদলের কর্মীসভায় পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত ২৫

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

পটুয়াখালীতে যুবদলের কর্মীসভায় পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত ২৫

পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলা যুবদলের কর্মীসভায় পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছে অন্তত ২৫ নেতা-কর্মী। কর্মীসভার অনুমতি না নিয়ে সভা করায় পুলিশ তা বন্ধ করে দিতে চাইলে যুবদল নেতা-কর্মীরা পুলিশের উপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় চার এসআইসহ ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে দাবি পুলিশের। 

মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতাসহ ২১ জনকে আটক করেছে দশমিনা থানা পুলিশ।

স্থানীয় যুবদল নেতারা জানান, কেন্দ্রীয় যুবদলের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে যুবদলের কর্মীসভা শুরু হয় উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন বিএনপির কার্যালয়ে। এতে পুলিশ বাধা দেয়। পরে নেতা-কর্মীরা সেখান থেকে নলখোলা এলাকার একটি বাসায় কর্মীসভা শুরু করে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে বেধরক লাঠিচার্জ করে নেতা-কর্মী ছত্র-ভঙ্গ করে দেয়। এতে যুদলের কেন্দ্রীয় নেতা শামিম হোসেন, শাহ আলম সানু, আল আমিন মোল্লা, ইকবাল বশির, জেলা যুবদল নেতা রুমিসহ স্থানীয় অন্তত ২৫ নেতা-কর্মী আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। যুবদল নেতা-কর্মীর পাল্টা হামলা ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনায় ও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে দাবি করেন ওসি।

দশমিনা থানার ওসি মো. জালাল উদ্দিন বলেন, অনুমতি না নিয়েই কর্মীসভা শুরু করলে তাদের নিষেধ করা হয়। পরবর্তীতে উপজেলার নলখোলা এলাকার রাস্তার উপর কর্মীসভা শুরু করলে তাদের বাধা দেয়া হয়। এ সময় তারা পুলিশের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে এসআই আব্দুর রহিম, এসআই নুরুজ্জামান, এসআই হারুন অর রশিদ, এসআই শামিম আহমেদ সোহাগসহ ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে পুলিশের উপর হামলার মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

এ বিষয়ে জেলা বা উপজেলা যুবদলের কোন নেতার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। জেলা যুবদলের সভাপতি মো. মনিরুল ইসলাম লিটনের মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য