শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৩:১৫
প্রিন্ট করুন printer

মোটরসাইকেল পোড়ানোর মামলায় ভাইস চেয়ারম্যানকে গ্রেফতার নিয়ে লুকোচুরি

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

মোটরসাইকেল পোড়ানোর মামলায় ভাইস চেয়ারম্যানকে গ্রেফতার নিয়ে লুকোচুরি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মোটরসাইকেল পোড়ানোর মামলায় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আল মামুনকে গ্রেফতার করা নিয়ে লুকোচুরি খেলছে পুলিশ।

ভৈরবের স্থানীয় সাংবাদিকসহ একাধিক সূত্র দাবি করেছেন আজ রবিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ভৈরবপুরস্থ নিজ বাসভবনের সামনে থেকে পুলিশ আল মামুনকে গ্রেফতার করে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেও কেউ কেউ গ্রেফতারের বিষয়টি প্রচার করেন। কিন্তু লুকোচুরির আশ্রয় নিচ্ছে ভৈরব পুলিশ।

এ ব্যাপারে মোবাইল ফোনে ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহীনের কাছে জানতে চাইলে তিনি প্রথমে ব্যস্ত আছেন বলে এড়িয়ে যান। দ্বিতীয়বার ফোন করলে তিনি জানেন না বলে জানান। 

অপরদিকে আল মামুন গ্রেফতার হননি বলে জানান ভৈরব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আলী মোহাম্মদ রাশেদ। আর ভৈরব সার্কেলের এএসপি রেজওয়ান দীপু জানান, গ্রেফতারের বিষয়টি তিনি জানেন না।

উল্লেখ্য, ভৈরব পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে মোটরসাইকেল পোড়ানোর অভিযোগে ১৯ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৩০ থেকে ৩৫ জনকে আসামি করে ভৈরব থানায় একটি মামলা করা হয়েছে। ভৈরব পৌর এলাকার ভৈরবপুর উত্তরপাড়ার বিল্লাল হোসেনের ছেলে আল আদিন বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে ভৈরব থানায় মামলাটি করেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় ভৈরবের কালিপুরে নৌকা প্রতীকের প্রচারে অংশগ্রহণ করার উদ্দেশ্যে যাওয়ার পথে আসামিরা আল আমিনকে মারধর করেন এবং তার ব্যবহৃত মটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করা হয়।
 
এ ব্যাপারে ভৈরব উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি সোহেলুর রহমান সোহেলকে প্রধান আসামি করে মামলাটি করা হয়। এ ছাড়া ভৈরব উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আল মামুন, উপজেলা যুবদলের আহবায়ক সুজন মিয়া, পৌর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক জাকারিয়া ফারুক, পৌর যুবদলের আহবায়ক হানিফ মাহমুদ, যুগ্ম আহ্বায়ক এনামুল হক, পৌর যুবদলের সদস্য সচিব জুবায়ের আল মাহমুদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আঙ্গুর মিয়া, উপজেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব মুকিত মিয়া, পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম খান, ১০ নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক নাসির মোল্লা, বিএনপি কর্মী লোকমান হোসেন, যুবদল নেতা বাসির মোল্লা, আক্তার হোসেন, নবী হোসেন, কামরুজ্জামান রকিকে আসামি করা হয়েছে। মোবাইল ফোন প্রতীকে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মামুনের সমর্থক হিসেবে পরিচিত জুনায়েত হোসেন ও ইমতিয়াজ হোসেনকেও এ মামলায় আসামি করা হয়েছে। 

উল্লেখ্য, আজ রবিবার ভৈরব পৌরসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে।
  
বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর