মঙ্গলবার, ২৪ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

অস্থিরতা কেটেছে বরিশালে

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে টানা পাঁচ দিনের অস্থিরতা কেটেছে। রবিবার রাতে বিভাগীয় কমিশনারের বাসভবনে বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসন এবং মেট্রো ও রেঞ্জ পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে সিটি মেয়রসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের সমঝোতা বৈঠকের পর বরফ গলতে শুরু করেছে। মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেছেন, আলোচনা শুরু হয়েছে। মামলা প্রত্যাহারসহ আলোচনার সুফল পেতে কয়েক দিন সময় লাগবে। বরিশালের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির স্বার্থে এমন উদ্যোগ খুবই জরুরি ছিল বলে মনে করেন মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার। তবে আইনি প্রক্রিয়ার মধ্য থেকেই পুরো বিষয়টি সমাধান করা হবে বলে তিনি জানান।

শান্তির শহর বরিশালের মানুষের গত পাঁচটি দিন কেটেছে অস্থিরতায়। রবিবার রাতে বিভাগীয় কমিশনারের বাসভবনে সমঝোতা বৈঠকের পর পাল্টে যায় দৃশ্যপট। মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি জানিয়েছেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে তৃতীয় কোনো পক্ষ সুযোগ নিতে পারে। আলোচনা শুরু হয়েছে। মামলা প্রত্যাহারসহ আলোচনার সুফল পেতে কয়েক দিন লাগবে বলে জানান এ কে এম জাহাঙ্গীর। প্রশাসন ও পুলিশের মামলার সুরাহা হলে সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র এবং রাজস্ব কর্মকর্তার দায়ের করা মামলার বিষয়েও ইতিবাচক সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান মনে করেন- যে কোনো উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন এবং প্রশাসনের মধ্যে সমন্বয় জরুরি হয়ে পড়ে। তারই অংশ হিসেবে রবিবার রাতে প্রশাসনের সঙ্গে সিটি মেয়রসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের সমঝোতা বৈঠক হয়েছে। বরিশালের মানুষের কল্যাণে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে আইনি প্রক্রিয়ার মধ্যে থেকেই পুলিশ এবং ইউএনও’র মামলার সুষ্ঠু সমাধান করার কথা বলেন তিনি। গত কয়েক দিনের চলমান পরিস্থিতি নিরসনে স্থানীয় গণমাধ্যমের ভূমিকার প্রশংসা করেন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান। চলমান অস্থিরতা কাটিয়ে সমঝোতার উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে বরিশাল নগরীর সব শ্রেণি-পেশার মানুষ।

পোস্টার-ব্যানার অপসারণকে কেন্দ্র করে গত বুধবার রাতে সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে আনসার সদস্যদের ৩ দফা গুলি এবং আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের হামলা-সংঘর্ষের ঘটনায় অর্ধশতাধিক মানুষ গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়। এ ঘটনায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর