শিরোনাম
প্রকাশ : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:৩২
আপডেট : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:৪০

স্কুলের মধ্যেই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা পুলিশের!

অনলাইন ডেস্ক

স্কুলের মধ্যেই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা পুলিশের!
পোশাক পরিহিত অভিযুক্ত এএসআই

স্কুলের মধ্যে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে কলকাতার হাড়োয়া থানার এক সহকারী উপপরিদর্শকের (এএসআই) বিরুদ্ধে। এ অভিযোগকে কেন্দ্র করে শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় হাড়োয়া থানার মোহনপুর।

এ ঘটনায় পুলিশের গাড়িতে আগুন দেয়ার পাশাপাশি রাস্তাঘাট যেমন অবরোধ করেছেন ক্ষুব্ধ জনতা, তেমনই পুলিশ পাল্টা লাঠি ও কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় পরে ওই উপপরিদর্শককে স্কুলের মধ্যে আটকে রেখে বেধড়ক মারধর করে গ্রামবাসী।

পরে পুলিশ গিয়ে প্রায় আট ঘণ্টার চেষ্টায় মাঝরাতে তাকে উদ্ধার করে। জাহাঙ্গীর হোসেন নামের ওই এএসআই এখন জেলার বসিরহাট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানা যায়, হাড়োয়া থানার মোহনপুরের বাছড়া এমসি এইচ হাইস্কুলে দু'দিন ধরে ছাত্র যুব উৎসব চলছিল। গতকাল সন্ধ্যায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর কাছে পানি চান সেখানে কর্তব্যরত সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) জাহাঙ্গীর আলম।

ভুক্তভোগী ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, স্কুলের দোতলায় পানি দিতে গেলে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন অভিযুক্ত এএসআই। এ সময় ছাত্রীর চিৎকার শুনতে পেয়ে সেখানে পৌঁছায় স্থানীয় লোকজন। তারপর অভিযুক্ত ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে বেদম মারধর করেন তারা।

পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় হাড়োয়া থানার পুলিশ। পরে রাত ১১টার দিকে ক্ষুব্ধ জনতার হাত থেকে অভিযুক্ত এএসআইকে উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনাটি ঘিরে এলাকায় এখনো যথেষ্ট চাঞ্চল্য রয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার।

 


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য