শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১৭:২৮

খালিস্তান নামের বাস পাকিস্তানই চালায় এটা গুরুতর হুমকি

কানাডীয় থিঙ্কট্যাঙ্কের রিপোর্ট

প্রতিদিন ডেস্ক

খালিস্তান নামের বাস পাকিস্তানই চালায় এটা গুরুতর হুমকি

নেতৃস্থানীয় কানাডীয় থিঙ্কট্যাঙ্ক ম্যাকডোনাল্ড-লরিয়ার ইনস্টিটিউটের (এমএলআই) এক রিপোর্টে বলা হয়, ভারতের পাঞ্জাবের যেসব শিখ তাদের স্বতন্ত্র আবাসভূমি তথাকথিত ‘খালিস্তান’ প্রতিষ্ঠার জন্য কানাডায় আন্দোলন করছেন, তাদের পেছনে প্রধান শক্তি পাকিস্তান। ‘খালিস্তান-এ প্রজেক্ট অব পাকিস্তান’ শীর্ষ রিপোর্টটি তৈরি করেন প্রবীণ সাংবাদিক টেরি মিলেউস্কি; ইনি কয়েক দশক ধরে কানাডায় খালিস্তানপন্থিদের কার্যকলাপ গভীর মনোযোগে পর্যবেক্ষণ করে চলেছেন।

রিপোর্টে বলা হয় : বাস্তববিমুখ শিখদের খালিস্তান আন্দোলন জিইয়ে রাখছে পাকিস্তান ও সে দেশের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। অনেকেই উপলব্ধি করেন না যে, খালিস্তান নামের বাসটি পাকিস্তানই চালায়। এটা শুধু কানাডার জন্যই নয়, ভারতের জন্যও গুরুতর একটা হুমকি। রিপোর্টটির ভূমিকায় কানাডার সাবেক কেবিনেট মন্ত্রী উজ্জ্বল দোসানুজ এবং এমএলআইর পরিচালক শুভলয় মজুমদার লিখেছেন- শিখ ধর্মবিশ্বাসকে বিকৃত করে উগ্রপন্থি-সন্ত্রাসবাদী যেসব কাজ কানাডা ও ভারতে চলছে তাতে পাকিস্তানের প্রভাব- প্রতিপত্তি বুঝবার জন্য মিলেউস্কির এ রিপোর্ট অবশ্যই পাঠ করা উচিত।

রিপোর্টে বলা হয় : খালিস্তান আন্দোলন এখন এতটাই হতবল যে পাঞ্জাবের শিখরাও তা পছন্দ করে না। অথচ আন্দোলনকারীরা খালিস্তান প্রশ্নে কানাডায় আগামী নভেম্বরে গণভোট দাবি করছে। ১৯৯০-এর দশকে ভারত পালানো শিখ সন্ত্রাসবাদীদের আশ্রয় দিয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তানের ‘বিচিত্র আচরণ’ বর্ণনা করে রিপোর্টে বলা হয়, যেসব শিখ পাকিস্তানের নাগরিক তাদের ওপর দেশটি জুলুম চালায় আর ‘খালিস্তান’ সমর্থন করে। বিস্ময়কর ব্যাপার হলো, উগ্রপন্থিরা খালিস্তানের যে মানচিত্র প্রকাশ করে তাতে লাহোর নগরীর এক ইঞ্চিও দেখানো হয়নি। অথচ, ২০০ বছর আগে এ নগরীতে বসেই শিখ সাম্রাজ্য শাসন করতেন মহারাজা রণজিৎ সিং।


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর