Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ আগস্ট, ২০১৯ ১৪:৪৩
আপডেট : ১৫ আগস্ট, ২০১৯ ১৪:৪৭

কলকাতায় বাংলাদেশ মিশনে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎবার্ষিকী পালিত

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

কলকাতায় বাংলাদেশ মিশনে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎবার্ষিকী পালিত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাৎবার্ষির্কী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে তাঁকে স্মরণ করছে কলকাতায় বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশন। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ডেপুটি হাইকমিশনের উদ্যোগে একাধিক কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

এদিন সকালে মিশন প্রাঙ্গণে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ করেন ডেপুটি হাইকমিশনার তৌফিক হাসান। এরপর সকাল ৮টায় বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবাহী কলকাতার ইসলামিয়া কলেজের (বর্তমান মৌলানা আজাদ কলেজ) বেকার হোস্টেলে বঙ্গবন্ধু স্মৃতিকক্ষে স্থাপিত তাঁর আবক্ষ মূর্তিতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান ডেপুটি হাইকমিশনারসহ অন্যরা। এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন মিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি (প্রেস) মোফাকখারুল ইকবাল, কাউন্সেলর বি.এম জামাল হোসেন, বাংলাদেশ সংসদ সদস্য ও সমাজসেবী অরোমা দত্ত, বাংলাদেশের খ্যতনামা অর্থনীতিবিদ ও বাংলাদেশ ব্যাঙ্কের সাবেক গভর্নর আতিউর রহমান প্রমুখ।

এছাড়াও সোনালী ব্যাংক লিমিটেড (কলকাতা শাখা) ও বাংলাদেশ বিমান-র তরফেও এদিন বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

পরে জাতির জনক ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত এবং এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। বেকার হোস্টেলের ২৩ এবং ২৪ নম্বর যে ঘর দুইটিতে বঙ্গবন্ধু থাকতেন সেই ঘর দুইটিও ঘুরে দেখেন মিশনের কর্মকর্তাসহ অন্যরা।

সকাল ১০টা থেকে ডেপুটি হাইকমিশনের সভাঘরে ‘স্বেচ্ছায় রক্তদান’ শিবিরের আয়োজন করা হয়েছে। 
বঙ্গবন্ধুকে পৃথিবীর একজন শ্রেষ্ঠতম রাজনৈতিক, মানবিক ব্যক্তি বলে আখ্যায়িত করে অরোমা দত্ত বলেন, বর্বর হানাদার, বিশ্বাসঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুর জীবন নিয়ে ভেবেছিল তাকে শেষ করে দিলেই হয়তো মুক্তিযুদ্ধও শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু এভাবে মুক্তিযুদ্ধও শেষ হয় না, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, বিশ্বাসকেও শেষ করা যায় না। বঙ্গবন্ধু যে সোনার বাংলা গড়ার ডাক দিয়েছিলেন, তার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা আজ বাংলাদেশকে বিশ্ব মঞ্চের সেরায় নিয়ে এসেছেন।

আতিউর রহমান জানান, বঙ্গবন্ধু যে কতটা সাধারণ ছিলেন তা বেকার হোস্টেলে আসলেই বোঝা যায়। সাধারণ মানুষের মধ্যে মধ্যে থেকে তিনি ধীরে ধীরে অসাধারণ হয়ে উঠেছেন। সাধারণের স্বপ্নকে তিনি বুকে ধারণ করে সারা জাতির মনে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন সাহসী বীর, তিনি মৃত্যুকে ভয় পেতেন না। বিশ্বাসঘাতকরা তাঁকে আমাদের মধ্যে থেকে সরিয়ে নিয়েছেন ঠিকই কিন্তু তিনি বেঁচে আছেন।
 
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ডেপুটি হাইকমিশনের উদ্যোগে আজ বিকাল ৫টা মিনিটে ৩০ মিনিটে কলামন্দিরে কলাকুঞ্জ মিলনায়তনে ‘ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এন্ড বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।  

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য