শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ১৮:২৬
আপডেট : ১৭ ডিসেম্বর, ২০২০ ২১:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের অগ্রগতি

অনলাইন ডেস্ক

মানব উন্নয়ন সূচকে বাংলাদেশের অগ্রগতি

জাতিসংঘের মানব উন্নয়ন সূচকে দুই ধাপ অগ্রগতি হয়েছে বাংলাদেশের। এবার ১৮৯টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩৩তম। গত বছর এই অবস্থান ছিল ১৩৫ তম।

গত বছরের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে মানব উন্নয়ন সূচক (এইচডিআই)  প্রতিবেদন-২০২০  প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (ইউএনডিপি)।

প্রতি বছর বিভিন্ন দেশের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, আয় ও সম্পদের উত্স, বৈষম্য, লৈঙ্গিক সমতা, দারিদ্র্য, কর্মসংস্থান, নিরাপত্তা, বাণিজ্য ও আর্থিক প্রবাহ, যোগাযোগ, পরিবেশের ভারসাম্য ও জনমিতির তথ্য বিশ্লেষণ করে মানব উন্নয়ন সূচক তৈরি করে ইউএনডিপি। এসব মানদণ্ডে এবার বাংলাদেশের মানব উন্নয়ন সূচকে স্কোর দাঁড়িয়েছে শূন্য দশমিক ৬৩২; যা গত বছর ছিল শূন্য দশমিক ৬১৪। যে দেশ পূর্ণসংখ্যা ১-এর যত কাছাকাছি সে দেশ মানব উন্নয়ন সূচকে তত উন্নত ধরা হয়। 

১৯৯০ সাল থেকে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে ইউএনডিপি।

প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বাংলাদেশ মানব উন্নয়ন সূচকে ধারাবাহিক উন্নতি করে যাচ্ছে। গত কয়েক বছর ধরে দুই থেকে তিন ধাপ করে এগোচ্ছে বাংলাদেশ। ২০১৬ সালের প্রতিবেদনে ১৩৯ তম অবস্থানে ছিল বাংলাদেশ। গত বছর এক ধাপ এবং তার আগের বছর তিন ধাপ এগিয়ে আসে বাংলাদেশ।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে ভারত, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ ও ভুটান। এ বছর শ্রীলঙ্কার অবস্থান এক ধাপ পিছিয়ে ৭২তম হয়েছে। মালদ্বীপ ১০৪তম থেকে ৯ ধাপ এগিয়ে ৯৫তম অবস্থানে উঠে এসেছে। ভারত দুই ধাপ পিছিয়ে ১৩১তম ও ভুটান পাঁচ ধাপ এগিয়ে ১২৯তম অবস্থানে উঠে এসেছে।

অন্যদিকে বাংলাদেশের পেছনে রয়েছে পাকিস্তান, নেপাল ও আফগানিস্তান। পাকিস্তান এক বছরের ব্যবধানে দুই ধাপ পিছিয়ে ১৫৪তম, নেপাল ৫ ধাপ এগিয়ে ১৪২তম এবং আফগানিস্তান এক ধাপ এগিয়ে ১৬৯তম অবস্থানে রয়েছে।

এবার বিশ্বে মানব উন্নয়ন সূচকে আগের বছরের মতো শীর্ষে অবস্থান আছে নরওয়ে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে আছে যথাক্রমে আয়ারল্যান্ড ও সুইজারল্যান্ড। 

এরপর আছে যথাক্রমে হংকং, আইসল্যান্ড, জার্মানি, সুইডেন, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ড ও ডেনমার্ক। 

আর সবার পেছনে আছে গায়ানা, লাইবেরিয়া, গিনি বিসাউ, কংগো ও নাইজার।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৭:০০
প্রিন্ট করুন printer

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন কাল

অনলাইন ডেস্ক

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন কাল
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নত দেশে উত্তরণের জন্য জাতিসংঘের চূড়ান্ত সুপারিশ লাভ করায় শনিবার সংবাদ সম্মেলনে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের প্রেস উইং থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। আগামীকাল শনিবার বিকাল ৪টায় গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় প্রান্তে ভার্চুয়ালি প্রেস কনফারেন্স যুক্ত হবেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, স্বল্পোন্নত দেশ (এলডিসি) থেকে বের হতে দ্বিতীয় দফায় জাতিসংঘের আনুষ্ঠানিক পর্যালোচনার মুখোমুখি হয় বাংলাদেশ। ২২ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি জাতিসংঘের কমিটি ফর ডেভেলপমেন্ট পলিসি (সিডিপি) এলডিসিগুলোর জন্য ত্রিবার্ষিক পর্যালোচনা বৈঠক করে। সিডিপি দ্বিতীয় দফায় এলডিসি থেকে বের হওয়ার প্রয়োজনীয় মানদণ্ড বাংলাদেশ পূরণ করতে পেরেছে কিনা তা নিয়ে পর্যালোচনা হয়। বাংলাদেশের পক্ষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল অংশ নেন।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:২৪
প্রিন্ট করুন printer

মুশতাকের ওপর অবর্ণনীয় নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়েছে: ফখরুল

অনলাইন ডেস্ক

মুশতাকের ওপর অবর্ণনীয় নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়েছে: ফখরুল
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর (ফাইল ছবি)

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারে বন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের ওপর অবর্ণনীয় নির্যাতন চালিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে। মুশতাক লুটপাটকারী কিংবা কালোবাজারি, সন্ত্রাসী ও ডাকাত ছিলেন না, বরং ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজের মেধাবী ছাত্র মুশতাক আহমেদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চিন্তার স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে গিয়ে অকালে তার জীবনপ্রদীপ নিভিয়ে দেয়া হলো।

আজ দুপুরে বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুবরণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমান তথ্য-প্রযুক্তির যুগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সমাজ ও রাষ্ট্রের বিভিন্ন সংগতি-অসংগতি, নিয়ম-অনিয়ম, কীর্তি-অপকীর্তি ইত্যাদি বিষয়ে স্বাধীনচেতা মানুষের অভিমত, বিশ্লেষণ ইত্যাদি প্রকাশের সুযোগ আজ গণতান্ত্রিক বিশ্বে সর্বজনস্বীকৃত। কিন্তু বাংলাদেশে বর্তমান কর্তৃত্ববাদী আওয়ামী সরকার তাদের অপকর্ম ও ভয়াবহ দুঃশাসনের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের সমালোচনা যাতে প্রকাশ না হয়ে পড়ে সেজন্য নানা কালাকানুনের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে মন্তব্য লেখা বা পোস্টকে কোনোভাবেই বরদাস্ত করছে না। যারা স্বাধীনভাবে উক্ত গণমাধ্যমে নিজের মতপ্রকাশের চেষ্টা করছে তাদের জীবনে নেমে আসছে এক ভয়ঙ্কর দুর্বিষহ পরিণতি। হয় তাদের গুমের শিকার হতে হচ্ছে নতুবা সরকারি হেফাজতে প্রাণ দিতে হচ্ছে। তার সর্বশেষ নির্মম শিকার হলেন মুশতাক আহমেদ।

তিনি বলেন, মুশতাকের এই নির্ভিক আত্মদানের মধ্য দিয়েই দেশের তরুণ সমাজ জেগে উঠবে এবং দেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ও নাগরিক স্বাধীনতাসহ সুশাসন ও আইনের শাসন ফিরে আসবে। মুশতাক একজন সৎ ও সাহসী মানুষ ছিলেন, তিনি চিরদিন অধিকারহারা মানুষের নিকট প্রেরণার আলোকবর্তিকা হয়ে থাকবেন। তিনি দেশবাসীর প্রার্থনা, চেতনা ও অনুভবে চিরদিনের জন্য বিরাজ করবেন। দেশে আইন-কানুন, সুষ্ঠু বিচারিক ব্যবস্থা না থাকার কারণেই এক শ্বাসরোধী পরিবেশ বিরাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, মুশতাকের এই মৃত্যুতে সারা দেশের সর্বস্তরের মানুষ ক্ষোভে-বেদনায় ফেটে পড়েছে। মুশতাকের মতো একজন অরাজনৈতিক, নিরীহ এবং নিজস্ব চিন্তায় স্বায়ত্বশাসিত ফেসবুকে ফ্রিল্যান্সার লেখকের মৃত্যু কোনো স্বাভাবিক ঘটনা নয়, এর সাথে রাষ্ট্রশক্তি জড়িত। কারাগারে মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ ও বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। পাশাপাশি মুশতাক আহমেদের কারান্তরীণ অবস্থায় মৃত্যুতে স্বচ্ছ, স্বাধীন ও নিরপেক্ষ বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করার দাবি করছি। মুশতাক আহমেদের শোকাহত পরিবার-পরিজন ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:২২
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৬:৫৭
প্রিন্ট করুন printer

নিজে থেকে ফোন করে কখনওই মেয়ের খোঁজখবর নিত না তামিমা: রাকিবের মা

অনলাইন ডেস্ক

নিজে থেকে ফোন করে কখনওই মেয়ের খোঁজখবর নিত না তামিমা: রাকিবের মা

বর্তমানে ক্রিকেটার নাসির ও বিমানবালা তামিমা সুলতানার বিয়ে চলছে তোলপাড়। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে নানা ধরনের আলোচনা-সমালোচনা। অভিযোগ উঠেছে, স্বামী রাকিব হাসানকে তালাক না দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা।

এদিকে বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন রাকিবের মা সালমা সুলতানা। তিনি বলেন, ১০-১২ বছর আগে রাকিবের সঙ্গে প্রেম করে বিয়ে করায় আমরা প্রথমে তামিমাকে মেনে নেইনি।

রাকিবের বাড়ি ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার ভৈরবপাশা ইউনিয়নে। নাসির-তামমিরা বিয়ের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই জানতে পারেন তিনি। এরপর তিনি রাকিব অভিযোগ করেন, বিবাহবিচ্ছেদ না করেই নাসিরকে বিয়ে করেছেন তামিমা।

এদিকে, রাকিব-তামিমার মেয়ে রাফিয়া হাসান তুবা টেলিভিশনে মায়ের বিয়ে দেখেছে গণমাধ্যমে। এরপর দাদির গলা জড়িয়ে ধরে অঝোরে কেঁদেছে।

তামিমার এই বিয়েতে অবাক হয়েছেন রাকিবের মা (তুবার দাদি)। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, রাকিবের বউ থাকা অবস্থায় তাম্মি (তামিমা) যে আবার বিয়ে বসবে সেটা আমাদের কল্পনাতেও ছিল না। তুবাই প্রথম টেলিভিশনে দেখে আমার কাছে এসে গলা জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়ে আর বলে যে মা আবার বিয়ে করেছে।

তিনি বলেন, প্রথমে আমরা তাকে মেনে নেইনি। কিন্তু তুবার জন্ম হলে সম্পর্ক স্বাভাবিক হয়। শুরু থেকেই তাম্মির আচরণ কিংবা স্বভাব কোনওটাই ভালো ছিল না। তবুও আমরা ছেলে আর নাতনির মুখ চেয়ে কখনও কিছু বলিনি।

তুবার দাদি বলেন, গত ২৬ আগস্ট ছিল তুবার জন্মদিন। সেদিন আমরা কেক কেটেছি, তুবা অনুষ্ঠানে নাচ করেছে। ভিডিও কলে তাম্মিকে সব দেখিয়েছি আমরা। সেও আনন্দ পাওয়ার অনেক ভান করেছে সেদিন। কিন্তু তখনও ঘুর্ণাক্ষরেও বুঝতে পারিনি যে সে এরকম একটা কিছু করবে। তাম্মি নিজে থেকে ফোন করে কখনওই তুবার কোনও খোঁজখবর নিত না। তুবা মাকে ফোন করে কথা বলতে চাইলেও নানা ব্যস্ততার অজুহাত দেখিয়ে লাইন কেটে দিতেন তামিমা।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:১৬
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:২৭
প্রিন্ট করুন printer

জাতিসংঘ মহাসচিবকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ

অনলাইন ডেস্ক

জাতিসংঘ মহাসচিবকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ
অ্যান্তনিও গুতেরেস

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তনিও গুতেরেসকে ঢাকা সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। জাতির পিতার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর উৎসবে অংশগ্রহণ করতে জাতিসংঘ মহাসচিবকে আমন্ত্রণ জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। 

যুক্তরাষ্ট্র সফররত পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে জাতিসংঘ মহাসচিবের অনলাইন বৈঠকের সময় তিনি এ আমন্ত্রণ জানান। এসময় করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশ সরকারের প্রশংসা করেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) জাতিসংঘের বাংলাদেশ স্থায়ী অফিস থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, বাংলাদেশের আর্থসামাজিক পরিস্থিতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব বিশেষ করে বাংলাদেশের জনগণের প্রতি তার সুদৃঢ় প্রতিশ্রুতির উচ্চকিত প্রশংসা করেন জাতিসংঘ মহাসচিব। আলোচনাকালে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও জাতিসংঘ মহাসচিব উভয়েই সম্মত হন যে করোনার ভ্যাকসিনকে বৈশ্বিক সম্পদ হিসেবে বিবেচিত করা উচিত।

একই সময় রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ায় বাংলাদেশের উদারতা অতুলনীয় বলে উল্লেখ করেন জাতিসংঘ মহাসচিব। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তিনি জানান, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন আমাদের যৌথ উদ্দেশ্য। এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ সময় ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের মানবিক সাহায্যে জাতিসংঘকে এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:৪২
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৪:০৬
প্রিন্ট করুন printer

চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের প্রতিবেদন

নাসির-তামিমার বিয়ের প্রসঙ্গ উঠল হাইকোর্টে

অনলাইন ডেস্ক

নাসির-তামিমার বিয়ের প্রসঙ্গ উঠল হাইকোর্টে
নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা। ফাইল ছবি

স্বামীর প্ররোচনায় প্রেমিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফির মামলা করেন এক নারী। ওই মামলায় হাইকোর্টে জামিন নিতে গেলে অভিযুক্তের পক্ষে দাঁড়ান কথিত ভুক্তভোগী। এসময় ক্রিকেটার নাসিরের বিয়ের প্রসঙ্গ উঠে আসে হাইকোর্টে। আদালত বলেন, নৈতিক ও সামাজিক অবক্ষয়ের কারণে সমাজে বাড়ছে এমন ঘটনা। 

ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিয়ে নিয়ে যখন আলোচনা সমালোচনা পুরো দেশজুড়েই। ঠিক তখনই হাইকোর্টে একই ধরণের এক বিয়েতে জামিন চাইতে এসেছেন এক ভুক্তভোগী। 

রাজধানীর দক্ষিণখান থানার পারভেজ ইসলাম সকালে হাইকোর্টে আসেন জামিন চাইতে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি খাদিজা আক্তার নামে এক নারীকে ধর্ষণ করেছেন। অভিযোগ এখানেই শেষ নয়, আরেকটি মামলা আছে পর্ণোগ্রাফি আইনে। 

নাটকীয়তার শুরু হয় যখন জামিন শুনানিতে হাজির হন মামলার বাদী খাদিজা আক্তার। তিনি জানান, মামলা দিতে বাধ্য করেছেন তার স্বামী। এরই মধ্যে সেই স্বামীকে দিয়েছেন তালাকও। শিগগিরই বিয়ে করবেন পারভেজ ও খাদিজা।

ক্ষুব্ধ হয়ে হাইকোর্ট দু’জনকে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রাখেন। বিকাল সাড়ে তিনটার পর শুরু হয় জামিন শুনানি। এসময় আদালত বলেন, এক ক্রিকেটারের বিয়ে নিয়েই তোলপাড় দেশ, এর মধ্যেই আরেক ঝামেলা এসে পড়ল হাইকোর্টের ঘাড়ে। আদালতের মন্তব্য, সামাজিক ও নৈতিক অবক্ষয়ের কারণে এ ধরনের ঘটনা বাড়ছে।

সব শুনে তাদের দু’জকেই সতর্ক করলেন আদালত, জামিন দেন পারভেজ ইসলামকে। 

জামিনের পর এক সাথেই আদালত থেকে বেরিয়ে যান পারভেজ-খাদিজা। জানান, প্রথম স্বামীকে তালাক দেওয়ার ৯০ দিন পার হলেই সারবেন বিয়ের কাজ।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর