শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:১৪

সিনিয়রদের রানে ফেরা খুব জরুরি ছিল

সিনিয়রদের রানে ফেরা খুব জরুরি ছিল
জাকির হোসেন

চট্টগ্রামে ছন্দে ফিরেছে তামিম ইকবালদের চিটাগং ভাইকিংস। হোম টিম হিসেবে এখানে প্রথম ম্যাচ হেরে  গেলেও দ্বিতীয় ম্যাচেই তারা হারিয়েছে রাজশাহী কিংসকে। এই জয় চিটাগং ভাইকিংসকে সামনে এগিয়ে চলার প্রত্যয়  জোগাচ্ছে। আজ তারা মুখোমুখি হচ্ছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের। প্রথম লেগে কুমিল্লাকে হারিয়েছিলেন তামিম ইকবালরা। এবারেও কী তাই হতে যাচ্ছে! জয়ে ফেরার পর চিটাগং ভাইকিংস কতটুকু আত্মবিশ্বাসী! এসব বিষয়ে কথা বলেছেন দলের তরুণ ক্রিকেটার জাকির হাসান। তার বক্তব্যের চুম্বক অংশ বাংলাদেশ প্রতিদিনের পাঠকদের জন্য—ক্রীড়া প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম থেকে

 

এ মুহূর্তে আপনাদের লক্ষ্য...

-শেষ ম্যাচটা আমরা খুব ভালো খেলেছি, আলহামদুলিল্লাহ। রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে সবাই ভালো খেলেছে। এখন প্রতিটা ম্যাচই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তবে আমরা কেবল পরের ম্যাচটা নিয়েই ভাবছি। আমাদেরকে ম্যাচ-বাই-ম্যাচ জয়ের চিন্তা করে খেলতে হবে। এটাই আমাদের লক্ষ্য। একটা একটা করে ম্যাচ জেতা।

সিনিয়ররা রানে ফিরেছে। এটা কতটুকু স্বস্তির?

-সিনিয়রদের রানে ফেরাটা খুব জরুরি ছিল আমাদের জন্য। এনামুল হক বিজয় ভাই বড় ইনিংস খেলতে পারছিলেন না।  শেষ ম্যাচে তিনি হাফ সেঞ্চুরি করেছেন। ব্যাটিংটা ভালো হওয়ায় ভালো একটা ভিৎ্ পাওয়া যাচ্ছে। আমরা বড় স্কোর তুলতে পারছি। সবাই পারফরম্যান্স করছে। সবাই কামব্যাক করছে। আশা করি, আমরা ভালো করব।

পাঁচ উইকেট শিকার করে তাসকিনের ফেরা...

-তাসকিন ভাই প্রথম ম্যাচটা ভালো করেছিলেন। পরের দুটি ম্যাচে তিনি ভালো করতে পারেননি। একটু খারাপই হয়েছে। তবে উনি খুব ভালোভাবেই ফিরেছেন। গত ম্যাচে পাঁচ উইকেট শিকার করাই এর প্রমাণ। উনার এভাবে ফিরে আসাটা আমাদের জন্য খুব প্রয়োজন ছিল। তাসকিন ভাই, ইমরান ভাই ভালো বল করছেন। নবী ভাই নিয়মিত ভালো বল করছেন। আমরা স্থানীয় স্পিনাররাও পারফর্ম করছি। আশা করি আমরা আরও ভালো করব।

পরের ম্যাচ কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের বিপক্ষে। কী ভাবছেন?

-কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস শেষ ম্যাচ জিতেছে শনিবার। এ জয় ওদেরকে আত্মবিশ্বাস জোগাবে। তবে আমাদেরও আত্মবিশ্বাস রয়েছে। ওদের চেয়ে বরং আমরা কিছুটা ভালো অবস্থানেই আছি। আমাদের বড় স্কোর হচ্ছে। ভালো বোলিং করছি। তাছাড়া আগের ম্যাচে আমরা ওদেরকে হারিয়েছি। এবারেও জয়ের লক্ষ্যেই খেলব।

হোম গ্রাউন্ডের সুবিধা কতোটুকু পাচ্ছেন?

-হোম গ্রাউন্ড বলতে এখানে আমরা দর্শকদের পূর্ণ সমর্থন পাচ্ছি। আর এখানকার উইকেটটাও দারুণ। ব্যাটে বল আসছে। এখানে বড় স্কোর করা সম্ভব। দিনের তুলনায় অবশ্য রাতে রান তোলাটা কঠিন। শিশির পড়ছে অনেক।


আপনার মন্তব্য