শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:১৭

আবাহনী-মোহামেডান ম্যাচ পরিত্যক্ত

বড় বাধা পেরোল সাইফ

শেখ জামাল ০ সাইফ স্পোটিং ৩

রাশেদুর রহমান

বড় বাধা পেরোল সাইফ

সন্ধ্যা নামার তখনো অনেক বাকি। কিন্তু সূর্যকে আড়াল করে রাখা মেঘের দল সন্ধ্যার অন্ধকার নামিয়ে দিল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। কালো ঘোমটা পরা আকাশ ভেঙে কিছুক্ষণের মধ্যেই নেমে এল অঝোর বৃষ্টি। এর মধ্যেই খেলল শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব এবং সাইফ স্পোর্টিং। প্রথমার্ধে খেলতে নেমে দুই দলের ফুটবলাররা কাদায় মাখামাখি হয়েছিল। দ্বিতীয়ার্ধের বৃষ্টি সেই কাদামাখা শরীরগুলোকেই ধুয়ে দিল। কিন্তু বৃষ্টি মুছে দিতে পারল না শেখ জামালের পরাজয়ের বেদনা। সাইফ স্পোর্টিংয়ের কাছে ৩-০ গোলের বেদনা নিয়েই ঘরে ফিরে ধানমন্ডি পাড়ার দলটি।

সেই সকালেই থেমেছে বৃষ্টি। এরপর দুপুর গড়িয়ে বিকাল হলেও মাঠটা ভিজে চুপচুপেই রয়ে গেল। খেলতে নেমে দুই পক্ষের ফুটবলাররাই বার বার আছড়ে পড়ল। কাদায় মাখামাখি হলো। শরীরের এখানে সেখানে আঘাত পেল অনেকেই। কিন্তু ম্যাচটায় প্রয়োজনের চেয়ে খুব একটা গতি থামল না। দুইটা দলই দুরন্ত ফুটবল উপহার দিল। একদিকে সলোমন কিংয়ের নেতৃত্বে লুসিয়ানো-বোজাঙদের নিয়ে শাণিত আক্রমণ চালিয়ে যাচ্ছে শেখ জামাল। অন্যদিকে জামাল ভুইয়ার নেতৃত্বে জাফর-ডেইনার-পার্ক- ডেনিসদের নিয়ে সাইফও দুরন্ত ফুটবল উপহার দিচ্ছে। প্রথম গোছানো আক্রমণটা করে সাইফই। ম্যাচের ৭ মিনিটে জামাল ভূইয়ার ফ্রি কিক থেকে বল পেয়ে দুরন্ত শটে গোলের চেষ্টা করেছিলেন কলম্বিয়ান ফুটবলার ডেইনার। তবে দুর্ভাগ্য তার। গোলবারে লেগে বল ফিরে আসে। এরপর দুই দলই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণ করে। ৪০তম মিনিটে এগিয়ে যায় সাইফ। থ্রো-ইন ধরে ডি বক্সের ভিতরেই ছোট্ট করে বল পাস দেন জামাল ভূইয়া। বল পেয়ে এবার কোনো ভুল করেননি জাফর ইকবাল। বাম পায়ের জোরাল শটে গোল করেন তিনি। ঠিক দুই মিনিট পরই দারুণ একটা ভলি করেন বোজাঙ। অনেকেই গোল বলে চেঁচিয়ে ওঠে। তবে বল বেরিয়ে যায় গোলবারের পাশ  ঘেঁষে। প্রথমার্ধটা ১-০ গোলেই শেষ হয়। দ্বিতীয়ার্ধের ৫৮তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে সাইফ। এবার জাফর ইকবালের ক্রসে বল পেয়ে হেডে গোল করেন ডেইনার আন্দ্রেস কর্ডোবা। ম্যাচটা জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রসদ পেয়ে যায় সাইফ স্পোর্টিং। তবে এরপর শেখ জামালের আক্রমণের গতি বেড়ে যায়। গাম্বিয়ান ফুটবলার বোজাঙ বার বারই বিপজ্জনকভাবে ঢুকে যান সাইফের ডিফেন্স লাইন ভেঙে। কিন্তু গোলের দেখা পাননি তিনি। ম্যাচের শেষদিকে পেনাল্টিতে গোল করে বড় ব্যবধানের জয় নিশ্চিত করে সাইফ। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে পেনাল্টি বক্সের ভিতরে জাফর ইকবালকে ফাউল করলে পেনাল্টি দেন রেফারি। সাইফের রুশ ফরোয়ার্ড ডেনিস বলশাকভ পেনাল্টি শটে গোল করতে কোনো ভুল করেননি। ৩-০ গোলের জয় নিশ্চিত হয় সাইফ স্পোর্টিংয়ের।

এ জয়ে প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে ৮ ম্যাচে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে চার নম্বর স্থান ধরে রাখল সাইফ স্পোর্টিং। এদিকে সন্ধ্যায় ঢাকা আবাহনী ও ঢাকা মোহামেডানের ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত হয়। রেফারি ১ ঘণ্টা অপেক্ষা করে মাঠ অনুপযুক্ত থাকায় পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন।

আজ বিকেল সাড়ে ৩টায় পুনরায় ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।


আপনার মন্তব্য