শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৪২

বোলিংয়ে দাপট ব্যাটিংয়ে হতাশা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

সাত মাস পর মাঠে নেমে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা আশাব্যঞ্জক পারফরম্যান্স করতে পারেননি। কিন্তু সবধরনের প্রতিবন্ধকতাকে জয় করেছেন।

প্রথম চ্যালেঞ্জ জিতে বিসিবি এখন নভেম্বরে আরও বড় আঙ্গিকে ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করবে। পরশু রাতে শেষ হওয়া তিন জাতির টুর্নামেন্টে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের মধ্যে মুশফিক (২১৯), মাহমুদুল্লাহ (১৬২) ছিলেন সবচেয়ে ধারাবাহিক। শুধুমাত্র ফাইনালেই রান করেছেন লিটন দাস (১১১), ইমরুল কায়েস (১৪৬)। গোটা টুর্নামেন্টে ব্যর্থ ছিলেন মোসাদ্দেক  সৈকত (৬৩), মুমিনুল হক (৫৬), নুরুল হাসান সোহান (১০৮), সৌম্য সরকার (৫০), মোহাম্মদ মিঠুন (৩৫), নাজমুল হোসেন শান্ত (৬৯), সাইফ হাসানরা (২৮)। তবে পেস বোলার সাইফ, রুবেল, তাসকিন, ইবাদত, মুস্তাফিজ, আল-আমিনরা দুরন্ত পারফরম্যান্স করেছেন। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জাতীয় দলের ব্যাটসম্যানদের পারফরম্যান্স নিয়ে পুরোপুরি সন্তুষ্টি পোষণ করেননি, ‘নিয়মিত যেসব খেলোয়াড়দের কাছে আমরা রান আশা করেছিলাম, সেটা হয়নি।’ মুশফিকের পর সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটিং করেছেন ইরফান শুক্কুর। ফাইনালে ৭৫ সহ রান করেছেন ২১৪।  

তারকা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে হাতে গোনা কয়েকজন ভালো ব্যাটিং করেছেন। কিন্তু জাতীয় দলের পেসারদের সবাই ছিলেন দুরন্ত পারফরমার। সাইফুদ্দিন, রুবেল, আল-আমিন, মুস্তাফিজ, তাসকিন, ইবাদতরা গতির সঙ্গে সুইংয়ের অপূর্ব মিশেলে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন। ১২টি করে উইকেট নিয়েছেন রুবেল ও সাইফ। মুস্তাফিজ, ইবাদত ও আল-আমিন ৮টি করে উইকেট নিয়েছেন। ৭ উইকেট নিয়েছেন তাসকিন। নতুন মুখ হিসেবে দারুণ বোলিং করা সুমন খান উইকেট নিয়েছে ৯টি।’ ১৫ নভেম্বর শুরু হবে পাঁচ দলের টি-২০ টুর্নামেন্ট।


আপনার মন্তব্য