১৬ জানুয়ারি, ২০২২ ১৪:৩৩

জকোভিচকে অস্ট্রেলিয়া ছাড়ার নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক

জকোভিচকে অস্ট্রেলিয়া ছাড়ার নির্দেশ

নোভাক জকোভিচ।

বড় ধাক্কা খেলেন নোভাক জকোভিচ। আদালতে হেরে গেলেন তিনি। এরপরই বিশ্বের এক নম্বর এই টেনিস তারকাকে অবিলম্বে অস্ট্রেলিয়া ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যার ফলে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন না খেলেই দেশে ফিরতে হচ্ছে সার্বিয়ান সুপারস্টারকে। 

জকোভিচের আবেদন খারিজ করে দেয় অস্ট্রেলিয়ার ফেডেরাল কোর্টে। সপ্তাহের শুরুর দিন এই ফেডেরাল কোর্টে জয় পেলেও, সপ্তাহের শেষ দিন হেরে গেলেন জোকার। গত শুক্রবার জনস্বার্থের কারণ দেখিয়ে জকোভিচের ভিসা বাতিল করেন অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন মিনিস্টার অ্যালেক্স হক। ৩ বছরের জন্য জকোভিচের অস্ট্রেলিয়ার ভিসা বাতিল করে প্রশাসন। 

এর আগে গত সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ার বিমানবন্দরে জকোভিচকে আটক করে অস্ট্রেলিয়ার সুরক্ষাবাহিনী। মেডিকেল ছাড়পত্র না দেখাতে পারার জন্য প্রথমে জোকারের ভিসা বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া প্রশাসন। মেলবোর্নের কাছেই তাকে ইমিগ্রেশন ডিটেনশন সেন্টারে আটকে রাখা হয়। এরপরই ফেডেরাল কোর্টের দ্বারস্থ হয় জোকারের আইনজীবীরা। গত সোমবারের শুনানিতে জোকারকে ইমিগ্রেশন ডিটেনশন থেকে ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয় আদালত।

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের জন্য প্রস্তুতিও শুরু করে দেন জকোভিচ। কিন্তু ফের নতুন করে শুরু হয় বিতর্ক। মেডিকেল ছাড়পত্রের জন্য ভুল তথ্য দিয়েছিলেন জকোভিচ। সার্বিয়ান সুপারস্টার নিজেও তা স্বীকার করে নেন। এরপরই ঘটনা ফের অন্য দিকে মোড় দেয়। 

জোকার আদালতকে জানিয়েছিলেন, গত ১৬ ডিসেম্বর তিনি করোনা সংক্রমিত হয়েছিলেন। সেই রিপোর্টও পেশ করেন। ওই তথ্য দেখিয়ে ভ্যাকসিনের জন্য মেডিক্যাল ছাড়পত্র পাওয়ার চেষ্টা করেন জকোভিচ। কিন্তু মেডিক্যাল ছাড়পত্র পাওয়ার জন্য ভুল তথ্য দেয় জোকারের এজেন্ট। যে ঘটনার পর আরও কঠোর হয় অজি প্রশাসন।

ভ্যাকসিন না নিলে অস্ট্রেলিয়ায় থাকতে দেওয়া হবে না। স্পষ্ট নির্দেশ দেশটির প্রশাসনের। কোভিডের বাড়বাড়ন্ত রুখতেই এই কড়া পদক্ষেপ অস্ট্রেলিয়ার। জোকারকে যদি ছাড় দেওয়া হত, তাহলে অন্যান্যদের ক্ষেত্রেও একই আচরণ বর্তাতে হত অস্ট্রেলিয়ার প্রশাসনের। তাই জনস্বার্থের কারণ দেখিয়েই জোকারের ভিসা বাতিল করেন অস্ট্রেলিয়ার ইমিগ্রেশন মিনিস্টার। এরপর  আদালতও সেই রায়ই প্রদান করে। ফলে জকোভিচকে ছাড়াই হবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন। 


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর