শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ অক্টোবর, ২০২০ ১৩:৪৫

রিপাবলিকান গিয়াসও বাইডেনের পক্ষে!

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

রিপাবলিকান গিয়াসও বাইডেনের পক্ষে!
সংগৃহীত ছবি

অভিবাসন ও মুসলিম বিদ্বেষী মনোভাবের কারণে রিপাবলিকান গিয়াস আহমেদ প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিপক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন। সকলকে যো-বাইডেনের পক্ষে একিভূত হবার অনুরোধ রেখেছেন। এটি করছেন প্রকাশ্যে। 

ডেমক্র্যাটদের পক্ষে কেন মাঠে নেমেছেন জানতে চাইলে গিয়াস আহমেদ বলেন, ট্রাম্প পুনরায় ক্ষমতায় এলে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসীদের টিকে থাকা দায় হয়ে পড়বে। ধর্মীয় বিশ্বাসের শঙ্কা তৈরী হবে। বিশেষ করে মুসলমানরা প্রতিপদে সমস্যার ভিকটিম হবেন বলেও এই রিপাবলিকান মনে করছেন। 

নিউইয়র্কে বসবাসরত বাংলাদেশী আমেরিকান গিয়াস আহমেদ ২০০২ সালে স্টেট সিনেটে (ডিস্ট্রিক্ট ১৩) লড়েছেন রিপাবলিকান প্রার্থী হিসেবে। দু’বছর পর আবারো লড়েন স্টেট এ্যাসেম্বলী ডিস্ট্রিক্ট-৩৯ থেকে। জয়ী হতে না পারলেও তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন মুসলিম অভিবাসী হিসেবে রিপাবলিকান পার্টির মনোনয়ন পেয়ে। সেই ধারায় নিজেকে রিপাবলিকান হিসেবে বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত করছেন। বিশেষ করে প্রবাসীদের স্বার্থে তিনি সবসময় সোচ্চার রয়েছেন। এবারও সকলে ভেবেছিলেন টাম্পের পক্ষেই মাঠে নামবেন। কিন্তু নেমেছেন যো বাইডেনের পক্ষে। 

নিউইয়র্কে মূলধারার এই রাজনীতিক ও বিএনপি নেতা আরো বলেছেন, বাইডেন প্রকাশ্যে অভিবাসী এবং মুসলিম আমেরিকানদের অধিকার ও মর্যাদার প্রশ্নে আপোষহীন হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন। তাই সকলের উচিত হবে তার বিজয় নিশ্চিত করা। অন্যথায় ভবিষ্যতে আর কেউ অভিবাসী ও মুসলমানদের পক্ষে দাঁড়ানোর সাহস দেখাবেন না। 

গিয়াস আহমেদ আরো বলেছেন, নতুন প্রজন্মকেও উদ্বুদ্ধ করতে হবে মা-বাবার সামগ্রিক পরিস্থিতির পক্ষে সরব থাকার জন্যে। তারা সোচ্চার হলে আরো দ্রুত সুফল আসবে। কারণ, তাদের মধ্যে যদি নেটওয়ার্ক সুসংহত হয় তাহলে তাদের সহপাঠি-সহকর্মীরাও প্রকৃত পরিস্থিতি সহজে অনুধাবনে সক্ষম হবেন। তাই ৩ নভেম্বরের নির্বাচনকে নিজেদের অস্তিত্বের চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করার বিকল্প নেই। 


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর