শিরোনাম
প্রকাশ : ২ জুলাই, ২০২১ ১৭:১৯
আপডেট : ২ জুলাই, ২০২১ ১৭:২২
প্রিন্ট করুন printer

বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

যন্ত্র আছে জনবল নেই, দুই যুগ ধরে বন্ধ অপারেশন

সাইফুল ইসলাম বেগ, বিশ্বনাথ (সিলেট)

যন্ত্র আছে জনবল নেই, দুই যুগ ধরে বন্ধ অপারেশন
অকেজো অপারেশন থিয়েটার
Google News

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অপারেশন থিয়েটার থাকলেও তা চালু হয়নি দুই যুগ ধরে। সার্জারি, অ্যানেসথেশিয়া ও গাইনী ডাক্তারের অভাবে অকেজো পড়ে আছে অপারেশন থিয়েটার (ওটি)। বন্ধ রয়েছে সিজারিয়ান অপারেশনসহ জটিল ও কঠিন অপারেশন। এতে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন দরিদ্র রোগীরা। সরকার কয়েক লাখ টাকা ব্যয়ে স্বয়ংক্রিয় আধুনিক অপারেশন থিয়েটার স্থাপন করলেও তা কাজে লাগছেনা সেবা প্রত্যাশী মানুষের। দীর্ঘ দিন অব্যবহৃত হওয়ায়, নষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়েছে অপারেশন থিয়েটারের অ্যানেসথেশিয়া মেশিনসহ অন্যান্য সরঞ্জামাদি।

জানা যায়, ১৯৮৬ সালে বিশ্বনাথ উপজেলার জনসাধারণের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে রামপাশা ইউনিয়নের কাদিপুুরে ৩১ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা করা হয়। হাসপাতালে প্রস্তুত করা হয় আধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ একটি অপারেশন থিয়েটার। তৈরির প্রথম দিকেই অপারেশন থিয়েটার চালু থাকলেও জনবল সংকটের কারণে গত ২৪ বছর ধরে তা বন্ধ রয়েছে।  

এরপর গত ২০১৯ সালে হাসপাতালটিকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়। নতুন করে পোস্ট অপারেটিভ রুমসহ তৈরি করা হয় একাধিক অত্যাধুনিক রুম। সেই সঙ্গে অপারেশন চালুু করতে সকল যন্ত্রপাতি সরবরাহ করলেও কার্যক্রম ও পদায়ন করেনি কর্তৃপক্ষ। জনবল না থাকায় নতুন অপারেশন থিয়েটারের কার্যক্রমও চালুু করতে পারছেনা হাসপাতাল। আগেরটির ন্যায় অকার্যকর হয়ে পড়ে আছে নতুন অপারেশন থিয়েটারও। প্রয়োজনীয় সকল যন্ত্রপাতি থাকলেও কেবল সার্জারি, অ্যানেসথেশিয়া ও গাইনী কনসালটেন্ট না থাকার কারণে যুগের যুগের পর বন্ধ রয়েছে অপারেশন। সেই সঙ্গে বিকল হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে সরকারের কয়েক লাখ টাকার চিকিৎসা সরঞ্জাম। এদিকে গত দু’বছর পূর্বে হাসপাতালে ডা. সালমা আক্তার নামে গাইনী কলসালটেন্ট পদে একজনকে পদায়ন করা হয়। এরপর এখানে দায়িত্ব পালন না করে, সংযুক্তিতে তিনি দায়িত্ব পালন করছে সিলেট শামসউদ্দিন মেডিকেল হাসপাতালে। 

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবদুর রহমান মুসা ‘বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ৩১ শয্যার ক্যাটাগরিতেও জনবল ঘাটতি রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে একজন মেডিকেল অফিসারের পদ ফাঁকা। অপারেশনের জন্যে আগে যে তিনটি পদ (সার্জারি, অ্যানেসথেশিয়া ও গাইনী) শূণ্য ছিল, ৫০ শয্যায় উন্নীত হয়েও তাই আছে। পর্যাপ্ত যন্ত্রপাতি থাকলেও জনবলের কারণে ওটি চালু করা যাচ্ছে না। অপারেশন থিয়েটার চালু করতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত আছে। 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর