শিরোনাম
প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:১১
প্রিন্ট করুন printer

প্রকৌশলী পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে একজন আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

প্রকৌশলী পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে একজন আটক
প্রকৌশলী পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ব্যক্তি।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) প্রকৌশলী পরিচয়ে চাঁদাবাজিসহ প্রতারণার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের আজিজিয়া হাউজিং এলাকা থেকে তাকে আটক করে বিকেলে থানা পুলিশে সোপর্দ করে।

আটক ব্যক্তির নাম মো. সবুর খান (৪২)। তিনি নগরীর বৈদ্যপাড়া এলাকায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করে জেলার বানারীপাড়ায় এলজিইডি’র একটি প্রকল্পে মাস্টাররোলে হিসেবে কাজ করছেন। তিনি ঝালকাঠী জেলার কাঠালিয়া উপজেলার আ. সোবাহান খানের ছেলে।

সিটি কর্পোরেশনের কর নির্ধারক বেলায়েত বাবলু জানান, সবুর খান বিভিন্ন সময় নগরীর বিভিন্ন এলাকায় নির্মাণাধীন বাড়ির মালিকদের কাছে গিয়ে নিজেকে সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলী পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজিসহ প্রতারণা করে আসছিলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলী ফরিদ মাহমুদ পরিচয়ে ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের আজিজিয়া হাউজিং এলাকায় মো. মাইনুদ্দিনের নির্মাণাধীন ৪তলা ভবনের অনুমোদিত নকশাসহ কাগজপত্র দেখতে চান। কিন্তু বিষয়টি মাইনুদ্দিনের স্ত্রী আনজুমান আরার সন্দেহ হলে তিনি বিষয়টি তার পূর্ব পরিচিত সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার ব্যক্তিগত সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর হেলালুজ্জামানকে জানান।

খবর পেয়ে সিটি কর্পোরেশনের একদল কর্মকর্তা-কর্মচারী ঘটনাস্থলে গিয়ে বিসিসি’র কথিত প্রকৌশলী ফরিদ মাহমুদকে আটক করেন।

এর আগেও তিনি নগরীর ৭ নম্বর এবং ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে গিয়ে সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশলী পরিচয়ে নির্মাণাধীন ভবন মালিকদের কাছ থেকে বিভিন্ন অঙ্কের চাঁদা আদায় করেছেন বলে অভিযোগ করেন সিটি কর্পোরেশনের প্রশাসনিক কর্মকর্তা কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলে তিনি জানান। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নুরুল ইসলাম জানান, আটক প্রতারক সবুর খানের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরসহ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর