শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ অক্টোবর, ২০১৮ ২৩:০৯

ওসমানী মেডিকেলে দুই কোটি টাকার নিয়োগ বাণিজ্য!

শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগে প্রায় দুই কোটি টাকা লেনদেনের অভিযোগ উঠেছে। এক বছরের জন্য জনবল নিয়োগের দায়িত্ব পাওয়া ‘কৃষ্ণা সিকিউরিটি সার্ভিস লিমিটেড’ নামক প্রতিষ্ঠান হাসপাতালের কিছু অসাধু কর্মকর্তার সঙ্গে যোগসাজশে এ নিয়োগ বাণিজ্য করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রতিটি পদে নিয়োগে দুই লাখ টাকা করে আদায়ের কথা স্বীকার করেছেন সংশ্লিষ্ট কোম্পানির কর্মকর্তা। হাসপাতাল সূত্র জানায়, গত ১৫ মে আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জনবল সরবরাহের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হয়। গত ৩১ জুলাই ও ৮ আগস্ট দরপত্র মূল্যায়ন কমিটির সভায় ৭ শতাংশ কমিশনে ঢাকার বাসাবো পূর্ব মাদারটেকের কৃষ্ণা সিকিউরিটি সার্ভিস লিমিটেডের দাখিলকৃত দরপত্রটি গৃহীত হয়। কৃষ্ণা সিকিউরিটি সার্ভিস কার্যাদেশ পাওয়ার পরই শুরু হয় নিয়োগ বাণিজ্য। প্রত্যেক পদে নিয়োগপ্রত্যাশীর কাছ থেকে আড়াই লাখ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এই ৮২ পদে নিয়োগে প্রায় দুই কোটি টাকার বাণিজ্য হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সিলেট সিটি করপোরেশনের স্থানীয় কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ লায়েক তার এলাকার কয়েকজন যুবককে চাকরি পাইয়ে দিতে যোগাযোগ করেন কৃষ্ণা সিকিউরিটি সার্ভিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষ্ণকান্ত রায়ের সঙ্গে। ওই সময় ফোনে কৃষ্ণ রায় তার কাছে প্রতিটি নিয়োগের জন্য আড়াই লাখ টাকা করে দাবি করেন। হাসপাতাল সূত্র আরও জানায়, নিয়োগপ্রাপ্তদের বেতন ১০ হাজার থেকে ১৪ হাজার টাকা পর্যন্ত। সারা বছরে একজন কর্মচারী ১ লাখ ২০ হাজার থেকে ১ লাখ ৬৮ হাজার টাকা বেতন পেলেও চাকরি পেতে তাকে বেতনের দ্বিগুণ পরিমাণ টাকা উেকাচ দিতে হচ্ছে।

নিয়োগের বিপরীতে টাকা নেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেছেন কৃষ্ণা সিকিউরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৃষ্ণকান্ত রায়। তিনি জানান, প্রতিটি পদে দুই লাখ টাকা করে নেওয়া হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর