শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১০ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:৪৯

ভিটেবাড়ি থেকে উচ্ছেদের অভিযোগ

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

ভিটেবাড়ি থেকে উচ্ছেদের অভিযোগ

কুমিল্লার মেঘনা উপজেলার  ভাওরখোলা গ্রামে ভুয়া দলিলের মাধ্যমে পৈতৃক বসতভিটাসহ মন্দিরের জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ভূমি উদ্ধারের জন্য মেঘনা উপজেলা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান ঐক্যপরিষদের সভাপতি ডা. দিনেশ চন্দ্র দেবনাথ প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ডা. দিনেশ চন্দ্র দেবনাথের মাতা-মনমোহনী বিহারী দেবনাথ ও পিতা-মৃত মহানন্দ দেবনাথ এসএ খতিয়ানের মালিক ওই গ্রামের আইচ আলী চন্দ্র মালী, ভক্ত চন্দ্র মালী, রজনী চন্দ্র মালী, অভয় চন্দ্র মালীর কাছ থেকে দুই দাগে ৭৮ শতক শিবমন্দিরসহ বসত বাড়ি ক্রয় করেন। ভুয়া দলিল করে তাদের উচ্ছেদ করা হয়। অভিযোগে উল্লেখ করা হয়- আব্দুর রশিদ, শাহীন, জসিম উদ্দিন ও সেলিম মিয়া গং ওই পরিবারকে ভিটে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের পর নানা ভয়-ভীতি দেখায়। এ জন্য ওই পরিবারটি উচ্ছেদ হওয়া ভিটে-বাড়ি থেকে অনেক দূরে ভাড়া বাড়িতে থাকছেন।  ডা. দিনেশ চন্দ্র দেবনাথ বলেন, আমি মেঘনা উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক। মেঘনা উপজেলা পরিষদে গত ২৭ জুলাই স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে সেলিম গং আমার ওপর হামলা করে। আমি মেঘনা থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করি। বর্তমানে বিষয়টি তদন্তাধীন। এছাড়া বিষয়টি ভাওরখোলা ইউপি চেয়ারম্যান ফারুক মিয়া আব্বাসীকে জানিয়েছি।

মেঘনা থানার ওসি আব্দুল মজিদ বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্তসাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অভিযুক্ত সেলিম মিয়া বলেন, আমার সঙ্গে ডা. দিনেশ চন্দ্র দেবনাথের কথা কাটাকাটি হয়েছে।

 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর