শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ এপ্রিল, ২০২০ ২৩:৪০

‘প্যাডে ভাত না থাকলে করোনা দিয়া হরমু কি’

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি

উপকূলীয় এলাকা পাথরঘাটা উপজেলার বেড়িবাঁধের বাইরে ও ভিতরে দিনমজুরসহ মৎস্যজীবীদের মধ্যে তেমন প্রভাব পড়েনি করোনারভাইরাসের। অনেক জেলে মনে করেন, সাগরে করোনা নেই। সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে একসঙ্গে ১০-১৫ জন মিলে মাছ শিকার করছেন সাগর-নদীতে। আবার নদীর পাড়ে সারিবদ্ধভাবে কাছাকাছি বসে জাল বুনছেন কেউ কেউ। সদ্য গভীর সমুদ্র থেকে মাছ শিকার করে ফিরে আসা ইউসুফ মাঝি ও জাকির হোসেন বলেন, ‘সাগরে কোনো করোনা নাই। যত করোনা হুনি কূলে আইসা।’ জিনতলা গ্রামের ইসমাইল হোসেন, বেল্লাল মিয়া বলেন, ‘মোগো প্যাডে ভাত না থাকলে করোনা দিয়া হরমু কি? কাম করলে টাহা পামু, হেই টাহা দিয়া চাউল কিনমু। সরকারের কাছ থেক চাল পাইলেও রোসন, তেল, পেয়াজতো কেনতে হইবে।’ কয়েকজন জেলে বলেন, ‘দাদন আনছি, মাছ ধরতেই অইবে। না ধরলেতো নির্যাতন আছেই।’ এদিকে বিষখালী ও বলেশ্বর নদের বেড়িবাঁধের বাইরে এবং ভিতরে অনেকেই মাস্ক পরলেও সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখে আড্ডায় জমতে দেখা গেছে। সরকারি-বেসরকারিভাবে সচেতনতা এবং প্রশাসনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা থাকলেও এসব এলাকার বাসিন্দারা তা মানছেন না। পাথরঘাটার ইউএনও হুমায়ুন কবির বলেন, ইতিমধ্যে উপজেলায় হতদরিদ্র ও ভিক্ষুকদের মধ্যে প্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া জেলেদের মধ্যে ফেরুয়ারি ও মার্চ দুই মাসের ৮০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। সচেতনতা ও নজরদারির বিষয়ে বলেন, আমরা প্রতি মুহূর্তে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। ইউপি চেয়ারম্যানদের মাধ্যমেও সচেতনতা কার্যক্রম এবং প্রচার-প্রচারণা চলছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর