শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ জানুয়ারি, ২০২০ ১৮:১৮

কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় চুরির অপবাদ

নবীনগরে গৃহবধূকে আটকে নির্যাতনের অভিযোগ, ৯৯৯-এ কল পেয়ে উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :

নবীনগরে গৃহবধূকে আটকে নির্যাতনের অভিযোগ, ৯৯৯-এ কল পেয়ে উদ্ধার
প্রতীকী ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় চুরির অপবাদ দিয়ে এক গৃহবধূকে আটকে রেখে শ্লীলতাহানীসহ দিনভর অমানবিক শারীরিক নির্যাতন চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৯৯৯-এ কল পেয়ে মধ্যরাতে ঐ গৃহবধূকে উদ্ধার করল পুলিশ। তাকে নবীনগর উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

নির্যাতিতা উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়নে নোয়াগ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী আসমা বেগম। এ ঘটনায় নির্যাতিতার স্বামী নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে চারজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। আসামিরা হলেন একই গ্রামের শরীফুল ইসলাম (শরীফ ডাক্তার), সাহেদ সরকার, জনি সরকার, শরীফুল ইসলামের স্ত্রী সীমা আক্তার। আজ বুধবার হাসপাতালের বেডে শয্যাশায়ী নির্যাতিতা আহত ওই গৃহবধূ সাংবাদিকদের কাছে তার উপর চালানো অমানবিক নির্যাতনে চিত্র তুল ধরেন।
 
সূত্র জানায়, একই গ্রামের পার্শ্ববর্তী বাড়ি হওয়ায় সাহেদ সরকার প্রায়ই কু-প্রস্তাব দিয়ে আসমাকে বিরক্ত করত। এর বিচার চেয়ে কোন প্রতিকার পায়নি নির্যাতিতার পরিবার। এ বিষয়টি কেন্দ্র করে উভয় পরিবারের মধ্যে মনোমালিন্য ও বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে গত শনিবার কৌশলে তাকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে বাড়ির দ্বিতীয় তলায় আটকে রেখে টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে শ্লীলতাহানি করে রোল দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। স্ত্রীকে আটকে রাখার খবর পেয়ে স্বামী নজরুল ইসলাম ৯৯৯-এ ফোন দিয়ে স্ত্রী উদ্ধারের আবেদন জানায়। 

বাদী জানায়, ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য এলাকার প্রভাবশালীরা মামলা তুলে নেওয়ার চাপসহ সমঝোতার চেষ্টা করছেন। নবীনগরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল) মেহেদী হাসান বলেন, তাকে দ্রুত উদ্বার করে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য