শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ মার্চ, ২০২০ ২০:৪৮

ডিম দিলো সুন্দরবনের বিলুপ্তপ্রায় আরও একটি বাটাগুর কচ্ছপ

বাগেরহাট প্রতিনিধি

ডিম দিলো সুন্দরবনের বিলুপ্তপ্রায় আরও একটি বাটাগুর কচ্ছপ

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল বন্যপ্রানী প্রজনন কেন্দ্রে বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির আরো একটি ‘বাটাগুর বাচকা’ কচ্ছপ ২১টি ডিম পেড়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বাটাগুর বাচকা প্রজনন এলাকার ভিজা মাটিতে এই মা কচ্ছপটি ২১টি ডিম পাড়ার পর তা থেকে বাচ্চা জন্মাতে বালুর মধ্যে ইনকিবেশনে রাখা হয়েছে। 

এই প্রজনন কেন্দ্রে গত ১০ মার্চ বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির আরও একটি বাটাগুর বাচকা কচ্ছপ রেকর্ড সংখক ৩৬টি ডিম পাড়ে। ওই ডিম থেকেও বাচ্চা জন্মাতে বালুর মধ্যে ইনকিবেশনে রাখা হয়েছে। এই কেন্দ্রে আরো ২টি বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির বাটাগুর বাচকা সহসাই ডিম পাড়বে বলে জানিয়েছে সুন্দরবন বিভাগ। 

সুন্দরবনের চাঁদপই রেঞ্জের করমজল করমজল বন্যপ্রানী প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজাদ কবীর জানান, সুন্দরবনসহ বিশ্ব থেকে হারিয়ে যেতে বসা বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির ‘বাটাগুর বাচকা’ কচ্ছপ রক্ষায় বন বিভাগ ও দেশ-বিদেশের কয়েকটি সংগঠন ২০১৪ সালে করমজলে বন্যপ্রানী প্রজনন কেন্দ্রে কাজ শুরু হয়। কয়েকটি পুকুর খননসহ সেড তৈরী করে আলাদা বাটাগুর বাচকা প্রজনন এলাকার গড়ে তুলে সেখানে কয়েকটি কচ্ছপ লালনা পালন শুরু করা হয়।  ২০১৭ সালে এই কেন্দ্রের ২টি কচ্ছপ ৩১ ও ৩২ টি ডিম পাড়ে। ওই ডিম থেকে ২৮ টি ও ২৯ টি বাচ্চা জন্ম নেয়। এরপর ২০১৮ সালে ওই দুইটি কচ্ছপ ২৬টি ও ২০টি ডিম পাড়ে । তা থেকে ৫ টি ও ১৬ টি বাচ্চা জন্ম নেয়।  গত বছর (২০১৯) একটি কচ্ছপ ৩২ টি ডিম পাড়ে ও ৩২ টি বাচ্চা জন্ম নেয়। 

গত ১০ মার্চ এই প্রজনন কেন্দ্রে একটি মা বাটাগুর বাচকা কচ্ছপ রেকর্ড সংখক ৩৬টি ডিম পাড়ে।  শুক্রবার সন্ধ্যায় আরো একটি মা বাটাগুর বাচকা কচ্ছপ ২১টি পেড়েছে। ডিম পাড়ার পর তা থেকে বাচ্চা জন্মাতে প্রাকৃতিক পরিবেশে বালুর মধ্যে ইনকিবেশনে রাখা হয়েছে। ৬৫ থেকে ৬৭ দিনের মধ্যে এই ডিম থেকে বাচ্চা ফুটবে বলে আসা করা হচ্ছে। এই কেন্দ্রে আরো ২টি বিলুপ্তপ্রায় প্রজাতির বাটাগুর বাচকা সহসাই ডিম পাড়বে বলে জানিয়েছে সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রানী প্রজনন কেন্দ্রের এই কর্মকর্তা। 


বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর