শিরোনাম
২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ১৯:৪১

ছুরিকাঘাত করে ছিনতাই, গ্রেফতার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর:

ছুরিকাঘাত করে ছিনতাই, গ্রেফতার ২

রংপুরে বিয়ের ছবি তোলার কথা বলে ফটোগ্রাফারকে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ছুরিকাঘাতসহ ক্যামেরা ছিনতাইয়ের ঘটনায় পুলিশ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে। এরা হলো, নগরীর বড়বাড়ি মুক্তাপাড়া গ্রামের আব্দুর রউফের ছেলে সাঈদ ওরফে শহীদ (১৯) ও নুরপুর এলাকার রাজু মিয়ার ছেলে সীমান্ত (২০)। শুক্রবার গাইবান্ধার সাদুল্ল্যাপুরে অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়। সেই সাথে লুট করা ১ লাখ ২০ হাজার টাকা মূল্যের ডিএসএলআর ক্যামেরা, স্মার্ট ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। 

শনিবার বিকেলে নগরীর সেন্ট্রাল রোডস্থ মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান, উপ-পুলিশ কমিশনার কাজী মুত্তাকি ইবনু মিনান। 

তিনি জানান, পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আসামী সাঈদ বোনের বিয়েতে ছবি তোলার কথা বলে ঢাকা থেকে রংপুরে নিয়ে আসেন কিশোরগঞ্জ জেলার তাড়াইল বাঁশহাটি তালজাঙ্গা গ্রামের আনোয়ার মিয়ার ছেলে বিল্লাল হোসেনকে (২৫)। গত ২১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টায় বিল্লাল রংপুরে আসলে সাঈদ ও সীমান্ত বড়বাড়ি সিংগীমারী রেললাইনের অদূরে বাচ্চু মিয়ার বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে বিল্লালকে তারা ঘাড়ের দুই পাশে, নাকে ও পেটে ছুরিকাঘাত করে গুরুতর রক্তাত্ব করে এবং ডিএসএলআর ক্যামেরা, মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। সেই সাথে বিল্লাল মারা গেছে ভেবে তারা গাইবান্ধা সাদুল্ল্যাপুর এলাকায় এক বন্ধুর বাসায় তারা আত্মগোপন করে। পরবর্তীতে জাতীয় জরুরী সেবা নম্বরে ফোন থেকে স্থানীয় থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিল্লালকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠায়। এ ঘটনায় বিল্লালের চাচাতো ভাইু মোনায়েম খান বাদী হয়ে কোতয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করলে ডিবি পুলিশ আসামী সাঈদ ও সীমান্তকে গ্রেফতারসহ লুট করা মালামাল উদ্ধার করে।

উপ-পুলিশ কমিশনার কাজী মুত্তাকি ইবনু মিনান, মামলার পর আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামীদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি। তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। ভুক্তভোগী বিল্লাল রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। 

বিডি প্রতিদিন/এএম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর