শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ জুন, ২০১৯ ০০:১১

মালয়েশিয়ার কত রূপ

মালয়েশিয়ার কত রূপ

প্রাকৃতিক রূপবৈচিত্র্যের ছোঁয়া ও আধুনিকতার অসাধারণ নৈপুণ্যে বর্তমান মালয়েশিয়া সারা বিশ্বের পর্যটনশিল্পে এনেছে এক নতুন দিগন্ত।

কীভাবে যাবেন

দ্বীপরাজ্য ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের স্বর্গরাজ্য এই মালয়সিটি বা মালয়েশিয়াতে ভ্রমণের জন্য আপনাকে মালয়েশিয়ান অ্যাম্বাসি থেকে ভিসা সংগ্রহ করতে হবে। আমাদের দেশ থেকে মালয়েশিয়াতে সহজেই ট্যুরিস্ট ও বিজনেস ভিসা ছাড়াও সব ধরনের ভিসা পাওয়া যায়।

কোথায় পাবেন ভিসা

সামর্থ্য থাকলেই সবার ইচ্ছা হয় চোখ মেলে বিশ্ব দেখার। তবে ইচ্ছা আর সামর্থ্যও অনেক জায়গায় কাজে আসে না। এর জন্য প্রয়োজন সে দেশের সরকারের অনুমোদনপত্র বা ভিসা। ভিসা আবেদন ফরমটি (িি.িরসর.মড়া.সু) সাইটে পাবেন। সরাসরি ভিসা আবেদন গ্রহণ করা হয় না। ২৫টি অনুমোদিত এজেন্সির মাধ্যমে ভিসা আবেদনপত্রটি জমা দিতে হবে।

আবাসন ও রেস্তোরাঁ

মালয়দের রূপকথার দেশে অসংখ্য হোটেলের মধ্যে রাতযাপনে পছন্দসই রুম ঝামেলা নেই। বিশেষ করে পর্যটন মৌসুমে তো একদমই না, খুবই সস্তায় বুকিং দেওয়া যায়। বিপরীত চিত্র পর্যটন মৌসুমে। পর্যটকের ভিড় থাকায় হোটেল ভাড়া কয়েকগুণ বেড়ে যায়। এ ছাড়া মালয় খাবারের পাশাপাশি ভিনদেশি খাবারের স্বাদ নিতে পেয়ে যাবেন রেস্তোরাঁ। মূল্য বিবেচনায় কুয়ালালামপুর শহরে খাবার দ্বিগুণ থেকে তিনগুণ বেশি দাম হয়ে থাকে।

দর্শনীয় স্থানসমূহ

পর্যটনবিশ্বের স্বর্গ মালয়েশিয়া প্রাকৃতিক রূপবৈচিত্র্য আর আধুনিতার মিশেলে গোটা বিশ্বের কাছে রোল মডেল। খুব কম সময়ের মধ্যে দেশটির পর্যটনশিল্প জয় করে নিয়েছে মানুষের মন। বোর্নিও দ্বীপের অন্যতম স্বর্গরাজ্য এটি। বিচের সঙ্গে গা-ঘেঁষে থাকা লাংকাওইর নীল জলরাশি এবং আশপাশের নারিকেল গাছের বাগান, ঝাড়বনের অপরূপ সৌন্দর্য দেখতে ক্যানভাসের মতো। মনে হয় নিপুণ কারুশৈলীতে শিল্পী ছবি এঁকে গেছেন। তামান নেগারা ন্যাশনাল পার্কে রয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ঝুলন্ত ব্রিজ যার দৈর্ঘ্য প্রায় ৫৩০ মিটার। ক্যামেরন হাইল্যান্ড মালয়েশিয়ার সবচেয়ে আকর্ষণীয় পাহাড়ি জনপদ। ব্রিটিশ শাসনামলে এর উন্নয়ন করা হয়েছিল। ব্রিটিশ রাজা জর্জ টাউনের নামে পেনাং শহরের জর্জ সিটি মালয়েশিয়ার অন্যতম সুন্দর স্থান। একই শহরে হ্যারিটেজ রিয়ার টয়েস মিউজিয়াম সারা বিশ্বেই বিখ্যাত। এ ছাড়া রয়েছে হোপিং আইসল্যান্ড, অসম্ভব সুন্দর একটি জায়গা। পাশেই রয়েছে আন্ডার ওয়ার্ল্ড ওয়াটার মিউজিয়াম, সুন্দর, পরিপাটি জায়গা! আরও আছে বাটার পার্ক। কুয়ালালামপরে রয়েছে বিশ্বের অন্যতম উচ্চতম পেট্রোনাস টুইন টাওয়ার। আছে মারদেকা বা স্বাধীনতা স্কয়ার। এ ছাড়া স্বর্গরাজ্য গ্রেন্থিং হাইল্যান্ড, মুলু গুহা, বাতু কেবস (পাথরের গুহা) এবং পারহেনশিয়ান আইল্যান্ডসহ অসংখ্য দেখার মতো জায়গা। সব মিলিয়ে বলা চলে মাহাথির মোহাম্মদের গড়ে তোলা মালয়েশিয়া আধুনিক স্থাপত্যের মিশিলে এক অপরূপ স্বর্গরাজ্য।

 


আপনার মন্তব্য