Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫০

বাংলাদেশের স্পিন পরীক্ষা

বাংলাদেশের স্পিন পরীক্ষা

ভীষণ বিরক্ত। কিন্তু কিছুই বলতে পারছেন না। ‘কোড অব কন্ডাক্ট’ রক্ষার স্বার্থ থাকায় সরাসরি কিছু বলতেও চাইলেন না।

সাকিব, মুশফিক, মুস্তাফিজরা যখন প্রচণ্ড গরমে অনুশীলন করে ঝালিয়ে নিচ্ছিলেন নিজেদের, তখন অনুশীলন মাঠ লাগোয়া গাছের ছায়ায় মিডিয়ার মুখোমুখিতে হতাশা প্রকাশ করলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ৪৮ ঘণ্টায় দুটি ম্যাচ খেলতে হবে ভেবে চরম হতাশা ঝরে পড়েছে টাইগার অধিনায়কের কণ্ঠে। একে দুবাইয়ের চামড়া পোড়ানো গরম, তার ওপর ভারতের বিপক্ষে কঠিন লড়াইয়ে নামার আগে কোনো বিশ্রাম নেই। তাই ক্ষোভ। রোহিত বাহিনীর বিপক্ষে ব্যাট-বলের লড়াইয়ে নামার আগে আজ আরও একটি কঠিন লড়াইয়ে মুখোমুখি হচ্ছেন মাশরাফিরা। এশিয়া কাপের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন বয়ে নিয়ে আসা টাইগারদের মূল লড়াই শুরু আগামীকাল। সুপার ফোরের লড়াইয়ে নামার আগে দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ তামিমবিহীন বাংলাদেশকে জোর লড়াই করতে হবে রশিদ খান, মুজিব-উর-রহমানের আফগানিস্তানের বিপক্ষে। সুপার ফোরে ওঠার লড়াইয়ে বিন্দুমাত্র গুরুত্ব নেই ম্যাচটির। হার-জিতে কিছু যাবে আসবে না মাশরাফি বাহিনীর। এর পরও ম্যাচটিকে হালকা মেজাজে নিতে চাইছেন না টাইগার অধিনায়ক। বরং প্রতিশোধের ম্যাচ হিসেবেই দেখছেন। তবে টাইগারদের ভাবনায় শুধুই আগামীকালের ভারত ম্যাচ। সকালে অনুশীলনে এসে জেনেছেন আফগানিস্তান ম্যাচের জয়-পরাজয় আলাদা কোনো গুরুত্ব বহন করবে না সুপার ফোরের লড়াইয়ে। আগামীকাল খেলতে হবে দুবাইয়ে। প্রতিপক্ষ ভারত। তার আগে আবুধাবির ধীরলয়ের উইকেটে আফগান স্পিন ট্রয় রশিদ, মুজিব ও মোহাম্মদ নবীকে সামলাতে হবে মাশরাফিদের। বিশেষ করে স্পিনার রশিদ ও মুজিবকে নিয়ে একটু বেশিই চিন্তিত মনে হলো টাইগার অধিনায়ককে, ‘রশিদ ও মুজিবকে সব ব্যাটসম্যানেরই খেলতে কষ্ট হচ্ছে। তাই বলে খেলা অসম্ভব, সেটা নয়। সিঙ্গেল করে খেললে সহজ হবে।’ আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগাররা নামছেন দেরাদুন বিপর্যয়ের পর। ভারতের দেরাদুনে তিন ম্যাচ টি-২০ সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছিল বাংলাদেশ। যদিও ম্যাচগুলো ছিল ভিন্ন ফরম্যাটের। এবার খেলা ৫০ ওভারের। টি-২০ ম্যাচের পরিসংখ্যানে আফগানরা এগিয়ে থাকলেও ওয়ানডেতে বাংলাদেশ। দুই দলের পাঁচ মোকাবিলায় বাংলাদেশের জয় তিনটি ও দুটি হার। সর্বশেষ মুখোমুখিতে আবার হেসেছিল বাংলাদেশ। ২০১৬ সালের অক্টোবরের সর্বশেষ লড়াইয়ে মাশরাফিরা জিতেছিলেন ১৪১ রানের আকাশসম ব্যবধানে। ওই ম্যাচে সেঞ্চুরি করেছিলেন তামিম ইকবাল। ১১৮ রানের ইনিংস খেলা বাঁ হাতি ওপেনার হাতের কব্জির ফ্রাকচার নিয়ে চলতি আসরের মাঝপথে ফিরে গেছেন দেশে। তার জায়গায় আজ ওপেন করতে পারেন বাঁ হাতি নাজমুল হোসেন শান্ত। ম্যাচটি হবে তার অভিষেক। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৪৪ রানের ইনিংস খেলা মুশফিকুর রহিমকেও আজ দেখা যাবে না ম্যাচে। ভারতের বিপক্ষে সুস্থ মুশফিককে পেতেই বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে বলেন মাশরাফি, ‘ভারতের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে আমাদের দলটির সবার ফিট থাকা জরুরি। এমন গরমে একজন ক্রিকেটারকে রিকভারি করতে কমপক্ষে ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা লাগে। আমরা এতটা সময় পাব না। তাই চিন্তা করছি কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারকে বিশ্রামে রাখার।’ এ ক্ষেত্রে হয়তো টিম ম্যানেজমেন্ট অধিনায়ক মাশরাফি, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব ও মুশফিককে বিশ্রাম দিতে পারে। সে ক্ষেত্রে অধিনায়কত্ব করতে পারেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ১৯৮৬ সাল থেকে এশিয়া কাপ খেলছে বাংলাদেশ। এর আগে মরুরাজ্যে সংযুক্ত আরব আমিরাতে দুবার ক্রিকেট খেলেছে। ১৯৯০ সালে শারজাহতে অস্ট্রেলেশিয়া কাপ ও ’৯৫ সালে এশিয়া কাপ। কিন্তু দুবাইয়ে এবারই প্রথম। প্রচণ্ড গরমে হাঁসফাঁস করা টাইগাররা এবার স্বপ্ন দেখছেন প্রথমবারের মতো এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের। শিরোপা জয়ের পথে মাশরাফিদের লড়তে হবে ভারত, পাকিস্তানের মতো ক্রিকেট পরাশক্তিকে। কিন্তু দল দুটির আগে বাংলাদেশকে জয় করতে হবে দুবাইয়ের ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর