শিরোনাম
সোমবার, ২৯ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা

ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ ও কামাল লোহানীকে সম্মাননা

চতুর্থ বর্ষে নিউজ টোয়েন্টিফোর

নিজস্ব প্রতিবেদক

ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ ও কামাল লোহানীকে সম্মাননা

অর্থনীতিতে বিশেষ অবদানের জন্য ড. ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ এবং সাংবাদিকতা ও মুক্তিযুদ্ধে অবদানের জন্য কামাল লোহানীকে বিশেষ সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রবীণ রাজনীতিবিদ আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, বসুন্ধরা গ্রুপ চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান -বাংলাদেশ প্রতিদিন

দেশের দুই কৃতী সন্তান, বরেণ্য ব্যক্তিত্ব ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ ও কামাল লোহানীকে সম্মাননা প্রদান করল সংবাদভিত্তিক বেসরকারি টেলিভিশন নিউজ টোয়েন্টিফোর। উৎসবমুখর পরিবেশে প্রতিষ্ঠানটির চতুর্থ বর্ষে পদার্পণ অনুষ্ঠানে গতকাল এই সম্মাননা প্রদান করা হয়। ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) আয়োজিত জন্মদিনের এই অনুষ্ঠান ঘিরে সব রাজনৈতিক, বিভিন্ন পেশার মানুষের আনন্দঘন মিলনমেলা ঘটেছিল। বসুন্ধরা গ্রুপ ও ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ লিমিটেডের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান প্রবীণ বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে দেশের দুই কৃতী সন্তান প্রবীণ সাংবাদিক, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের অন্যতম সংগঠক কামাল লোহানী এবং স্বনামধন্য অর্থনীতিবিদ ড. ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদকে সম্মাননা প্রদান করেন। এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের, আওয়ামী লীগ নেতা ক্যাপ্টেন (অব.) এ বি তাজুল ইসলাম এমপি, মির্জা আজম এমপি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান ও সাফওয়ান সোবহান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর, নিউজ  টোয়েন্টিফোরের সিইও, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম। সম্মাননা অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কালের কণ্ঠের সম্পাদক ও কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন। স্বাগত বক্তব্য দেন নিউজ টোয়েন্টিফোরের হেড অব কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সামিয়া রহমান। উপস্থিত ছিলেন নিউজ টোয়েন্টিফোরের নির্বাহী পরিচালক হাসনাইন খোরশেদ সূচি ও হেড অব নিউজ রাহুল রাহা।

এর আগে সকালে ঢাকার দুই মেয়র সাঈদ খোকন ও আতিকুল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে কেক কেটে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। উপস্থিত ছিলেন নৌ পুলিশের ডিআইজি শেখ মোহাম্মদ মারুফ হাসান, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়–য়া, এফবিসিসিআই সাবেক সভাপতি মীর নাসির হোসেন, বাংলাদেশ চেম্বার অব ইন্ডাস্ট্রিজ (বিসিআই) সভাপতি আনোয়ার উল আলম চৌধুরী পারভেজ, রিহ্যাবের সিনিয়র সহসভাপতি নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এমপি, বিএনপি নেতা জয়নুল আবদিন ফারুক, ডেইলি সান সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিনের নির্বাহী সম্পাদক পীর হাবিবুর রহমান, কালের কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন নিউজ টোয়েন্টিফোরের হেড অব নিউজ রাহুল রাহা।  সম্মাননা অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য আমির হোসেন আমু বলেন, নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রতিষ্ঠা করেছেন আহমেদ আকবর সোবহান। তিনি শুধু নিউজ টোয়েন্টিফোর নয়, বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে এ দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে বেকার সমস্যা সমাধানে কাজ করে আসছেন। নিউজ টোয়েন্টিফোর, বাংলাদেশ প্রতিদিন, কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন মিডিয়া প্রকাশের মাধ্যমে ভারসাম্য সৃষ্টির চেষ্টা করছেন। এজন্য এই প্রতিষ্ঠানকে আমি আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই। তিনি বলেন, যাদের সম্মাননা দেওয়া হয়েছে তাদের আমি আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জানাই। আর গুণীজনদের সম্মাননা দেওয়ার মধ্য দিয়ে এই দেশের মানুষের কাছে নিউজ টোয়েন্টিফোর একটি নতুন মাত্রা সৃষ্টি করল তাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে। যে জাতি গুণীদের সম্মান দিতে পারে না, সেই জাতি পিছিয়ে থাকে। সম্মাননার মধ্য দিয়ে কর্মকা- আলোকিত হয়। নতুন প্রজন্মের কাছে বিষয়গুলো উন্মুক্ত হয়। তবে আমাদের নতুন প্রজন্ম নতুন ধারা পাবে প্রতিটি ক্ষেত্রে। এজন্য নিউজ টোয়েন্টিফোর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, আমার ভালো লাগছে, যেদিন নিউজ টোয়েন্টিফোর প্রতিষ্ঠিত হয় ওইদিনও আমি উপস্থিত ছিলাম। নিউজ টোয়েন্টিফোর জন্মের পর থেকে স্বাধীনতার চেতনা ও মূল্যবোধ বুকে ধারণ করে চলেছে। নিউজ টোয়েন্টিফোর আমরা দেখি সব সময়। প্রতিষ্ঠানটি তিন বছর পেরিয়ে চতুর্থ বছরে পদার্পণ করেছে এজন্য ধন্যবাদ। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে মানুষ একদিন তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করত তলাবিহীন ঝুড়ি বলে। আজ সেই বাংলাদেশকে নিয়ে বলে, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের রোল মডেল। আমরা এগিয়ে চলছি, গ্রাম আজ শহরে পরিণত হয়েছে। জাতির পিতার দুটি স্বপ্ন ছিল, একটি বাংলার স্বাধীনতা, আর একটি অর্থনৈতিক মুক্তি। একটি তিনি করে গেছেন। আর একটি যখন করতে শুরু করেছিলেন তখনই বুলেটের আঘাতে সপরিবারে তাকে হত্যা করা হয়েছিল। জাতির পিতার কন্যার হাতে আমরা আওয়ামী লীগের পতাকা তুলে দিয়েছিলাম, সেই পতাকা হাতে নিয়ে তিনি এগিয়ে চলেছেন। আমি বিশ্বাস করি, সেই দিন বেশি দূরে নয়, যে দিন এই বাংলাদেশ ক্ষুধামুক্ত দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলায় পরিণতে হবে। এই কাজে আমরা সব সময় নিউজ টোয়েন্টিফোর এবং ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপকে আমাদের কাছে পাব।  বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ দেশের সর্ববৃহৎ মিডিয়া গ্রুপ। বর্তমানে এই গ্রুপের তিনটি পত্রিকা, একটি রেডিও, একটি অনলাইন নিউজ  পোর্টাল, একটি টিভি চ্যানেল রয়েছে। আগামীতে আরও একটি টিভি চ্যানেল আসছে।

তিনি বলেন, আমাদের সুমহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতার গৌরবের চেতনার ওপর প্রতিষ্ঠিত ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ শুরু থেকে দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। আমি আশা করি, আমি থাকি বা না থাকি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশ ও মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নে পথ চলা অব্যাহত থাকবে।

বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান আরও বলেন, দেশের দুই কৃতী মানুষকে আজ সম্মানিত করতে পেরে সমগ্র জাতি, সমগ্র দেশ ও বসুন্ধরা গ্রুপ সম্মানিত হয়েছে। দেশের প্রতি তাদের যে অবদান, আগামীতে বাংলাদেশের মানুষ তা মনে রাখবে। তিনি নিউজ টোয়েন্টিফোরের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, যারা ২৪ ঘণ্টা দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন, তাদের প্রতিদিন চ্যালেঞ্জ নিতে হয়। প্রতিদিন পরীক্ষা দিতে হয়। প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে সবাইকে আরও বেশি পরিশ্রমী ও দায়িত্বশীল হতে হবে। একদিনের জন্যও ভুল করা যাবে না। প্রথম দিন থেকেই আমরা বলে আসছি, স্বাধীনতার সপক্ষে আজীবন কাজ করে যাব। এই নীতিতে আমরা বলীয়ান। এই আদর্শে বলীয়ান হয়ে ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ কাজ করবে।

সম্মাননা পাওয়ার পর অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে কামাল লোহানী বলেন, প্রথমেই আমি চতুর্থ বর্ষে পদার্পণের জন্য নিউজ টোয়েন্টিফোরকে অভিনন্দন জানাই। নিউজ টোয়েন্টিফোর বলিষ্ঠ এবং প্রত্যয়ী সংবাদ পরিবেশনার মাধ্যমে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছে। দেশের কল্যাণে এবং মানুষের অগ্রগতিতে নিউজ টোয়েন্টিফোর তার দায়িত্ব পালন করে যাবে।  তিনি বলেন, এ দেশটা আমাদের। আমরা লড়াই করে লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জন করেছি আমাদের স্বাধীনতা। সেই স্বাধীন দেশে বাস করে আমরা আজ নানা ধরনের ঘাত- প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে চলেছি। প্রতিরোধ করে চলেছি অন্যায়ের। আমরা কোনো দিন অন্যায় প্রশ্রয় দেয়নি। আজকে আমরা জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে এবং সামাজিক অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে। ধর্ষণ, হত্যার মতো যেসব কর্মকা  হচ্ছে, তাতে সব মানুষ যেমন উদ্বিগ্ন, তেমনি প্রতিরোধ করার জন্য গণমাধ্যম, বিশেষ করে নিউজ টোয়েন্টিফোর যেভাবে ভূমিকা রাখছে, তা প্রশংসনীয়। 

সম্মাননা পাওয়া অর্থনীতিবিদ ড. ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ বলেন, আমাকে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য নিউজ টোয়েন্টিফোরের কর্তৃপক্ষকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানাই। আমাকে কেন সম্মাননা জানানো হলো, সেটা আমার কাছে বোধগম্য নয়। কারণ- অর্থনীতিবিদরা গণমানুষের কাছে খুব পরিচিত নন। তারা বরং যেসব বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকেন যেমন, কী করে মানুষের কাছ থেকে কর বাড়ানো যায়, কী করে শেয়ারবাজার বেশি চাঙ্গা না করে আরও যুক্তিসঙ্গত করা যায়, এসব বিষয় তো খুব জনপ্রিয় না। তারপরও আমাকে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য আমি খুবই কৃতজ্ঞ আপনাদের কাছে। নিউজ টোয়েন্টিফোর শুধু সংবাদ দিয়েই থাকে না, সংবাদ বিশ্লেষণও করে। স্বাধীন গণমাধ্যম হিসেবে ইলেকট্রনিক মিডিয়া সচিত্র সংবাদ পরিবেশন করে। সচিত্র বললাম এই কারণে যে, মানুষ এই সংবাদ দেখেই বিবেচনা করতে পারে, এই সংবাদের যথার্থতা আছে, বিশ্বস্ততা আছে। এই বিশ্বাস নিউজ টোয়েন্টিফোরেরও আছে বলে আমার ধারণা।  তিনি বলেন, নিউজ টোয়েন্টিফোর একটা জায়গা করে নিতে পেরেছে। আমি আশা করব- আমাদের দেশে নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে, বিভিন্ন জাতীয় বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর ক্ষেত্রে, সরকারের জবাবদিহিতার ক্ষেত্রে নিউজ টোয়েন্টিফোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

নিউজ টোয়েন্টিফোরের জন্মদিনের এই অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফিয়াত সোবহান, সাফওয়ান সোবহান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর এবং নিউজ টোয়েন্টিফোরের সিইও, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজামের হাতে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। অতিথিদের মধ্যে উল্লেখযোগ্যরা হলেন- ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, পুলিশের বিশেষ শাখা- এসবির ডিআইজি মাহবুব হোসেন, বিএনপির হাবিবুন নবী খান সোহেল, শফিউল বারী বাবু, হাবিবুর রহমান হাবিব, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, সহসভাপতি আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, সংগীত শিল্পী হায়দার হোসেন, ক্যাবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-কোয়াবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এস এম আনোয়ার পারভেজসহ বিভিন্ন বেসরকারি টেলিভিশন, পত্রিকা, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃস্থানীয়রা।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর