শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৪৯

বেপরোয়া বাসে প্রাণ গেল দুই ভাই ও মামা-ভাগ্নের

নিজস্ব প্রতিবেদক

বেপরোয়া বাসে প্রাণ গেল দুই ভাই ও মামা-ভাগ্নের

ভাইয়ের জন্য পাত্রী দেখতে এসে রাজধানীর উত্তরায় বেপরোয়া বাসের ধাক্কায় দুই ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। তারা মোটরসাইকেলে গাজীপুর থেকে বাড্ডা আসছিলেন। গতকাল দুপুর সোয়া ২টার দিকে উত্তরা পূর্ব থানার সামনে তাদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দেয় বেপরোয়া গতির বাসটি। দুর্ঘটনার পর মুমূর্ষু অবস্থায় দুজনকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

পালিয়ে যাওয়ার সময় অভি পরিবহনের ওই বাসের চালক সোহেলকে আটক করেছে পুলিশ। একইসঙ্গে বাসটিও জব্দ করা হয়েছে। নিহত দুই ভাই হলেন- লিটন (৩৬) ও জুয়েল (৩৫)। তাদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলায়। ঢামেকে স্বজনরা জানিয়েছেন, নিহত দুই ভাই লিটন ও সোহেল আরেক ভাই বাবুলের বিয়ের জন্য মেয়ে দেখতে গাজীপুর থেকে মোটরসাইকেলযোগে বাড্ডা শাহজাদপুর যাচ্ছিলেন। পথে উত্তরা পূর্ব থানার সামনে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন। উত্তরা পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আলম সিদ্দিকী জানান, মহাখালীগামী একটি বাস থানার ঠিক সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় একটি মোটরসাইকেলকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হন। তবে মোটরসাইকেলে ধাক্কা দিয়ে চালক দ্রুত বাসটি চালিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। পথে কাকলীর কাছে পুলিশ বাসটি আটকে চালককে গ্রেফতার করে। জানা গেছে, সিরাজগঞ্জ থেকে আসা অভি এন্টারপ্রাইজের ওই বাস মহাখালীর দিকে যাচ্ছিল।

এদিকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে রাস্তা পার হওয়ার সময় যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় মামা-ভাগ্নে নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে যাত্রাবাড়ীর সাদ্দাম মার্কেট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন আনোয়ার হোসেন (৪০) ও তার ভাগ্নে সালাউদ্দিন (২০)। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লায়। দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসা পথচারী আবদুল্লাহ জানান, সাদ্দাম মার্কেটের সামনে রাস্তা পার হওয়ার সময় অনাবিল পরিবহনের একটি বাস তাদের ধাক্কা দেয়। এতে তারা দুজন গুরুতর আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। রাত ১টার দিকে চিকিৎসক তাদের দুজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত আনোয়ারের স্ত্রী শাহেদা বেগম জানান, তারা সাদ্দাম মার্কেট এলাকায় থাকেন। দুই সন্তানের জনক আনোয়ার। মতিঝিল এলাকায় পানির ব্যবসা করতেন আনোয়ার। আনোয়ারের ভাগ্নে সালাউদ্দিন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর