বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২ ০০:০০ টা

বিএনপির নতুন নাটক : নানক

বিএনপির নতুন নাটক : নানক

নির্বাচনের পর বিএনপির জাতীয় সরকার গঠনের প্রস্তাব প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, জাতীয় সরকার গঠন বিএনপি নেতাদের নতুন নাটক। বিএনপির হাতে আগামী নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী কিংবা দলের নেতা নেই। সে কারণে তাদের জোট ধরে রাখার নতুন কৌশল হচ্ছে নির্বাচনের পর জাতীয় সরকার গঠনের প্রস্তাব। গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপকালে এমন মন্তব্য করেন তিনি। জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া দুর্নীতির মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত। প্রধানমন্ত্রী তো দূরের কথা, তিনি নির্বাচনে প্রার্থীই হতে পারবেন না। অন্যদিকে তারেক রহমান যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি হয়ে লন্ডনে পলাতক আছেন। তিনিও নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারবেন না। সুতরাং বিএনপি তাদের জোট ধরে রাখতে নতুন কৌশলের আশ্রয় নিয়েছে। নিজেদের গ্রহণযোগ্য কোনো প্রধানমন্ত্রী প্রার্থী না থাকায় নির্বাচনের পর জাতীয় সরকার গঠনের মুলা ঝুলিয়েছে। বিএনপির সঙ্গে যারা ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে থাকবে তাদের নতুন টোপ দেওয়া হয়েছে যে তাদের নিয়েই পরবর্তীতে সরকার গঠন করা হবে। আওয়ামী লীগের এই প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, বাংলাদেশের মানুষ উন্নয়ন-অগ্রগতি ও শান্তি চায়। বিএনপির অশান্তি-সন্ত্রাস চায় না। আগামী নির্বাচনে মানুষ শান্তির জন্য আওয়ামী লীগকেই বেছে নেবে। অন্যদিকে বিএনপি নেতৃত্ব কিন্তু ভালো করেই জানেন নির্বাচনের আগে জাতীয় সরকার হলে নিশ্চিতভাবে সে সরকারের প্রধান শেখ হাসিনাই হবেন। কারণ এ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চেয়ে গ্রহণযোগ্য কোনো নেতা বাংলাদেশে নেই এবং সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা হিসেবে তিনিই দায়িত্ব পাবেন। সেখানে বিএনপি মনে করে তাদের কোনো লাভ থাকবে না, সেজন্যই তারা জোট ধরে রাখতে নির্বাচন-পরবর্তী জাতীয় সরকারের কথা বলছেন।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, বিএনপি নেতারা একদিকে জাতীয় সরকারের কথা বলছেন, অন্যদিকে নির্বাচনে না আসার পাঁয়তারা করছেন। এ দ্বিচারী ভূমিকা তাদের ছাড়তে হবে। বিএনপিকে আগে নির্বাচনে আসতে হবে। তাদের মিত্র জামায়াতে ইসলামীর কুকর্ম ঢাকার জন্য নানা পাঁয়তারা করছে। শাক দিয়ে মাছ ঢাকার কূটকৌশল বন্ধ করতে হবে তাদের। ঈদের পর আন্দোলন প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, বিএনপির ঈদের পর আন্দোলন ‘প্রবাদ’বাক্যে পরিণত হয়েছে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একেক সময় একেক রকম কথা বলেন। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, রোজার পর আন্দোলন কাকে বলে দেখাবেন। বিএনপির গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে আমরা স্বাগত জানাব। কিন্তু যদি সহিংসতা, অরাজকতা করে তা রাজনৈতিকভাবেই মোকাবিলা করা হবে। নানক অভিযোগ করেন, দেশের মধ্যে অস্থিরতা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছেন বিএনপির নেতারা। এর অংশ হিসেবে নিউমার্কেটে ব্যবসায়ী ও ছাত্রদের মধ্যে সংঘর্ষ ঘটিয়েছেন। তারা লাশ ফেলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সরকারের সঠিক পদক্ষেপের ফলে বিএনপির ষড়যন্ত্র সফল হয়নি। তিনি আরও বলেন, বিএনপি জন্মলগ্ন থেকেই জনগণের সঙ্গে শঠতা ও কপটতার আশ্রয় নিয়েছে। জনগণকে মিথ্যা ও অসত্য তথ্য দিয়ে বারবার বিভ্রান্ত করেছে। শুধু ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে বিএনপি এমন কোনো কাজ নেই যা তারা করেনি। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় বসেই স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার, আলবদরদের পৃষ্ঠপোষক হয়ে উঠলেন। গ্রেফতার যুদ্ধাপরাধীদের মুক্তি দিয়ে তাদের রাষ্ট্রীয়ভাবে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করলেন। খালেদা জিয়াও তা-ই করেছেন। রাজাকারদের গাড়িতে পতাকা তুলে দিয়েছেন।

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর