শিরোনাম
রবিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২৩ ০০:০০ টা

অচিরেই মারাত্মক পরিণতি

নিজস্ব প্রতিবেদক

অচিরেই মারাত্মক পরিণতি

বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান বলেছেন, সরকার যা করছে, তা শুধু আওয়ামী লীগের জন্য নয়, পুরো জাতির জন্য অচিরেই মারাত্মক পরিণতি ডেকে আনবে। সরকারের কাণ্ডজ্ঞানহীন চিন্তাধারা বাংলাদেশকে ৭ জানুয়ারি একটি নির্বাচনি সার্কাসের দিকে ধাবিত করছে। ক্ষমতার মেয়াদ বাড়িয়ে নিতে এই যে নির্বাচন খেলা, সেটির পরিণাম কখনোই জাতির জন্য মঙ্গলজনক হতে পারে না। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে ড. মঈন খান বলেন, সরকার মনোনয়ন জমা দেওয়ার দিনটিকে তাদের নির্বাচনে বিজয়ের দিন বলে উল্লাস করছে। এটা যে তাদের জন্যে কত বড় ভ্রান্তিবিলাস, সেটা তারা কল্পনাও করতে পারছে না।

তিনি বলেন, বলার অপেক্ষা রাখে না যে, এ নির্বাচন নিয়ে জনগণের মধ্যে উচ্ছ্বাস কিংবা আগ্রহ কোনোটাই নেই। এটা ইতোমধ্যেই স্পষ্ট যে নির্বাচনের দিন ভোটারদের কেন্দ্রে গিয়ে কোনোরূপ ভোট দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা সম্পূর্ণ নিঃশেষ হয়ে গেছে। কারণ নির্বাচনের ফলাফল ইতোমধ্যে নির্ধারিত হয়ে গেছে। মানুষের ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার প্রয়োজন বাংলাদেশে চিরতরে ফুরিয়ে গেছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে দেশের অধিকাংশ রাজনৈতিক দল পাতানো নির্বাচনের তফসিল বর্জন করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা গণতান্ত্রিক বিশ্বও এ নির্বাচন নিয়ে আস্থাহীনতার প্রশ্ন তুলেছে। তারা যে সংলাপের আহ্বান জানিয়েছিল, সরকার তা আমলেই নেয়নি। ফলে জাতিসংঘ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন এ নির্বাচনে পর্যবেক্ষকও পাঠাচ্ছে না। কারণ তারা বুঝে গেছে, নির্বাচনের নামে এখানে কত বড় প্রহসন হতে যাচ্ছে।

মঈন খান বিবৃতিতে আরও বলেন, সরকার মনে করেছে, আগের মতো এবারও একতরফা একটি নির্বাচন করে স্বাচ্ছন্দ্যে ক্ষমতায় থাকবে, সেটা হওয়ার নয়। কেন না, এখন ২০১৪ বা ২০১৮ সাল নয়। এ দেশে জনগণের আন্দোলন কখনোই বৃথা যায়নি, এবারও যাবে না।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর