শনিবার, ১৮ মে, ২০২৪ ০০:০০ টা

জুতা ছিঁড়ে যাওয়ায় নাচতে দেরি মমতার!

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

জুতা ছিঁড়ে যাওয়ায় নাচতে দেরি মমতার!

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির ‘ট্রেডমার্ক’ পরনে সাদা শাড়ি আর পায়ে হাওয়াই চটি জুতা। শুক্রবার সেই জুতা হঠাৎ ছিঁড়ে গেল নির্বাচনি প্রচারণা সভায় বক্তৃতা করার সময়। সভা শেষে আদিবাসী মেয়েদের সঙ্গে তাঁর নাচবার              কথা। চটি মেরামতে পাঁচ-সাত মিনিট লেগেছে। তাই তাঁর নাচতে একটু দেরিই হলো। চটি মেরামত মমতা নিজেই করেন।

শুক্রবার লোকসভা আসনে ঝাড়গ্রামের তৃণমূল প্রার্থী কালিপদ সোরেনের সমর্থনে স্থানীয় গোপীবল্লভপুরে গজাশিমুল নবজোয়ার ময়দানে নির্বাচনি প্রচারণা বক্তৃতা দিয়ে মমতা যখন আদিবাসী মহিলাদের সঙ্গে ধামসা বাজাতে যাচ্ছিলেন ঠিক তার আগেই বিপত্তি! সভা মঞ্চেই মমতার হাওয়াই চটি ছিঁড়ে যায়। এরপর নিজের হাতেই সেফটিপিন জোগাড় করে লাগাতে থাকেন। বললেন, ‘আমার জুতোটা ছিঁড়ে গেছে, হাঁটতে হাঁটতে আমি সেফটিন লাগাই।’ যদিও হাওয়াই চটির কোনো দোষ নেই বলেও জানান মমতা। তাঁর অভিমত, ‘ওর দোষ কিছু নেই। আমার জুতোর যে আয়ু তার থেকে বেশি হেঁটে ফেলেছি।’

এরপর চেয়ার টেনে বসে এক হাতে জুতো আর এক হাতে সেফটিপিন দিয়ে চটি মেরামত করেন। চটি ছিঁড়ার খবর পেয়ে নারী নিরাপত্তা রক্ষীরাও তাঁর পাশে হাজির। রাজ্য মন্ত্রিসভার দুই সদস্য মানুষ ভূঁইয়া ও বীরবাহা হাঁসদাসহ জেলা স্তরের নেতারাও যথেষ্ট অস্বস্তিতে। একে অপরের দিকে ইঁতিউঁতি চাইছেন। কেউ আবার জোর করে হাসি চেপে রেখেছেন। পরে মন্ত্রিসভার আরেক সদস্য ইন্দ্রনীল সেন গান ধরলেন, আর সেই গানের তালে তালে আদিবাসী মহিলারা নাচলেন, মমতাও নাচলেন। আদিবাসীদের অন্যতম বাদ্যযন্ত্র ধামসাও বাজালেন।

সব শেষে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে মঞ্চ ছাড়লেন মমতা।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর