Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ২১:৩৭

সঙ্গী এখন ছাতা

সঙ্গী এখন ছাতা
♦ মডেল : বুশরা ♦ ছবি : মঞ্জুরুল আলম

কী গ্রীষ্ম কী বর্ষা, রোদ-বাদলের একচ্ছত্র রাজত্বে আপনার অন্যতম সঙ্গী বা হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে রঙিন ছাতা।

সময় এখন বৈশাখের। প্রকৃতির মেজাজ পরিবর্তন হতে একটুও সময় নিচ্ছে না। এ যেন দুরন্ত স্বভাবের খামখেয়ালিপনা। তাইতো সকাল দেখে দুপুর অনুমান করা যাচ্ছে না। আবার দুপুর দেখে বিকাল কিংবা সন্ধ্যা অনুমান করা যাচ্ছে না। তাছাড়া প্রতিদিনের রুটিন অনুযায়ী আপনাকেও ছুটতে হচ্ছে দূর-দূরান্তে। তাই বলে তো আর রোদে পোড়া বা বৃষ্টিতে ভেজা সম্ভব নয়। কিন্তু এমন খামখেয়ালি আবহাওয়াতে নিজেকে রক্ষা করবেন কেমন করে? এমন প্রশ্নে যখন আপনি চিন্তিত তখন নির্ভরযোগ্য  সঙ্গী হতে পারে পছন্দসই একটি ছাতা।

বাজারে বেশ কয়েকটি ছাতার ব্র্যান্ড রয়েছে। দেশি ছাতার পাশাপাশি বিদেশি ছাতার চাহিদাও রয়েছে ব্যাপক। নানা রং এবং নকশার বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ছাতা পাওয়া যায়। এগুলোর মধ্য থেকে পছন্দসই একটি ছাতার জন্য আপনার হাতব্যাগে একটি জায়গা বরাদ্দ করে দিন আজই। তবে হ্যাঁ, ছাতা কেনার সময় অবশ্যই বয়স ও ব্যক্তিত্বকে বিবেচনায় রাখুন।   বয়স্ক হলে বড় কালো ছাতা ব্যবহার করুন। এটি অপেক্ষাকৃত বেশি টেকসই। আর তরুণ হলে ভাঁজযুক্ত ছাতা ব্যবহার করতে পারেন। যদিও আকৃতিতে ছোট এবং সহজে বহনযোগ্য নানা রঙের ছাতা থাকায় ভাঁজ করা যায় এমন ছাতার জনপ্রিয়তা বেশি। এটি আপনার ব্যাগের মধ্যে অনায়াসে জায়গা করে নিতে পারে। এ ধরনের ছাতা ঝড় মোকাবিলায় পটু নয়। তাই ঝড় এলে সাবধান। শিশুদের জন্য উজ্জ্বল রং ও নকশার ছাতা রয়েছে। অফিসগামী নারী-পুরুষ, স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গামী ছাত্রদের জন্য এমন দিনে ছাতা ছাড়া যেন একদম চলে না। বৃষ্টির তাড়া খেয়ে সব সময় যে নিরাপদ স্থান পাবেন তা কিন্তু নয়। তাই রোদ বৃষ্টিতে রক্ষা পেতে এখন সঙ্গী ছাতা।

 

একটি সময় ছিল শুধু রোদ-বৃষ্টির হাত  থেকে রেহাই পেতে ছাতা হলেই হলো।  কেমন তা দেখতে বা কী রং সেসব বিবেচ্য বিষয় ছিল না। কিন্তু বর্তমান সময়ে মানুষ অনেক বেশি ফ্যাশন সচেতন। ছাতা কেনার আগেও তারা হিসাব-নিকাশ করেন ছাতাটা কতটা ফ্যাশনেবল। মার্জিত রং কি-না, ব্যবহারে আধুনিকতার ছোঁয়া আছে কি-না ইত্যাদি।  যে কারণে দেশীয় ব্র্যান্ড ছাড়াও বেশকিছু বিদেশি ব্র্যান্ড আমাদের দেশীয় ছাতার বাজার দখল করে নিয়েছে। তার মধ্যে জাজবাটোর, গ্রিপ-২, হাস-জর্ডান, মিকি ব্যাগ, উইন্ডব্রেলা, শেড রেইন, সাউদান প্লাস, দি ওয়েদার কোং অন্যতম। দেশের অভিজাত শপিং মলগুলোতে দেখা মিলবে এদের। এ ছাড়া দেশীয় ব্র্যান্ডের ছাতা তো রয়েছেই। সংকরের ছাতা কিংবা আলমের ছাতা অন্যতম। দামও হাতের নাগালে ৪০০ থেকে ১২০০ টাকার মধ্যে মিলবে দেশীয় ছাতা আর ৮০০ থেকে ৬ হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে বিদেশি ব্র্যান্ডের ছাতাগুলো।


আপনার মন্তব্য