শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০৯

ধর্মঘটে অচল রংপুর মেডিকেল রোগীদের দুর্ভোগ

রংপুর প্রতিনিধি

ধর্মঘটে অচল রংপুর মেডিকেল রোগীদের দুর্ভোগ

টানা তিন দিন চলতে থাকা ধর্মঘটে অচল হয়ে পড়েছে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতাল। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন রোগী ও তাদের স্বজনরা। তুচ্ছ ঘটনায় ধর্মঘট ডাকায় হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েছেন তারা।।

তুচ্ছ ঘটনায় পাল্টাপাল্টি অবস্থান নিয়েছেন নার্স ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। ফলে গতকাল সারা দিন চরম দুর্ভোগে কাটান রোগীরা। এদিকে, চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ এবং নার্স ও ইন্টার্ন চিকিৎসকের মধ্যে হাতাহাতি ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের দাবিতে গতকালও রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। মানববন্ধন থেকে পাঁচ দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত সব ধরনের ক্লাস, পরীক্ষা বর্জন ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা সেবা দেওয়া থেকে বিরত থাকার ঘোষণা দেন।

জানা গেছে, সোমবার সকালে এক রোগীকে ইনজেকশন দেওয়ার সময় একজন নার্সের হাত থেকে কয়েক ফোঁটা (ডিস্টিল ওয়াটার) পানি এক ইন্টার্ন চিকিৎসকের শরীরে ছিটকে পড়ে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্য বাকবিত ার এক পর্যায়ে হাতাহাতি হয়। কর্তৃপক্ষের তৎক্ষণাৎ হস্তক্ষেপে ঘটনার মীমাংসা হয়। কিন্তু মঙ্গলবার ওই ঘটনার জেরে নার্সদের একটি গ্রুপ তাদের ওপর হামলা করে বলে অভিযোগ করেন ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। নার্সরাও একই অভিযোগ করেন। একে কেন্দ্র করে নার্স ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা পাল্টাপাল্টি পরিচালকের কার্যালয় ঘেরাও করেন। বিষয়টি সমঝোতায় আনতে তিন দিন ধরে  ইন্টার্ন চিকিৎসক ও স্টাফনার্সদের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. শাহাদাত হোসেন ও রমেক অধ্যক্ষ ডা. নুরুন্নবী লাইজুসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের বৈঠক হলেও তা কাজে আসছে না। গতকাল বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলা বৈঠকটি কোনো সমঝোতা ছাড়াই শেষ হয়। তবে এ ব্যাপারে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ডা. মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘ইন্টার্ন চিকিৎসক ও নার্সদের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টা চলছে। আশা করি শিগগির ধর্মঘট প্রত্যাহার হবে।’


আপনার মন্তব্য