মঙ্গলবার, ১৫ মার্চ, ২০২২ ০০:০০ টা

বাড্ডায় নারীর গলা কাটা লাশের রহস্য উদঘাটন

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে গৃহবধূর গলা কাটা লাশ উদ্ধারের ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করেছে পুলিশ। রবিবার রাতে লাশ উদ্ধারের পরই তার স্বামী এবং গাড়ির ড্রাইভারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। গতকালও তাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করে বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত যাচাই করা হয়েছে। রবিবার রাতে বাড্ডা লিংক রোডের ১০ নম্বর গলিতে নিজ বাসার বাথরুম থেকে ওই নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়। তার নাম আফরোজা সুলতানা তামান্না (৩০)। রাতেই লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। থানা পুলিশ জানায়, স্বামী আয়ান ফারিজ বাসায় ফিরে আফরোজা বেগমের গলা কাটা লাশ দেখতে পান। এটি পরিকল্পিত খুন বলে ধারণা করছেন তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা। দুই মাস আগে আয়ানের সঙ্গে আফরোজার বিয়ে হয়। তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামে। তবে আফরোজার বাবা-মা কুড়িল বিশ্বরোডে থাকেন। এর আগে রবিবার সোয়া ৪টায় আফরোজা তার গাড়ির ড্রাইভার হৃদয় বেপারিকে সঙ্গে নিয়ে ফ্ল্যাটে ঢোকেন। লাশ উদ্ধারের খবরে থানা পুলিশ ছাড়াও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় ডিবির গুলশান বিভাগ এবং সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট। তদন্ত-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রবিবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে ওই বাসার সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে একজন বারবার সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করছেন। আর স্বামী আয়ান অফিস থেকে ফিরে বাসায় স্ত্রীকে রক্তাক্ত দেখে সাহায্যের জন্য ছুটে যান প্রতিবেশীর কাছে। আফরোজার পরিবার বলছে, কারও সঙ্গে বিরোধ ছিল না তাদের মেয়ের। এদিকে প্রতিবেশীরা বলছেন, ঘটনার সময় তারা গাড়িচালককে বাসা থেকে বের হতে দেখেছিলেন। ডিবির গুলশান বিভাগের উপকমিশনার (ডিবি) মশিউর রহমান জানান, ঘটনাটি হৃদয়বিদারক। তবে দু-এক দিনের মধ্যেই খুনিকে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে। একই রাতে সবুজবাগের পূর্ব রাজারবাগ হিন্দুপাড়া এলাকার একটি বাসা থেকে অনন্যা রানী রায় (১২) নামে এক কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়। গতকাল মেয়েটির বাবা অমল চন্দ্র বর্মণ জানান, কল্লোল সরকার নামে এক ছেলের সঙ্গে অনন্যার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এ বিষয়ে তারা কিছু জানতেন না। রবিবার রাতে মোবাইলে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে। তাদের বাড়ি গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চাষিয়া গ্রামে। 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর