Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:১২

গুলি আসলে গোলা যাবে, পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি অমিত শাহ’র

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

গুলি আসলে গোলা যাবে, পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি অমিত শাহ’র

পাকিস্তান যদি গুলি ছুঁড়ে তবে ভারত গোলা ছুঁড়বে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির সভাপতি অমিত শাহ। 

সোমবার পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে এক নির্বাচনী জনসভায় এই হুঁশিয়ার দেন। 

এসময় অমিত শাহ বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদি দেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর থেকেই দেশের সুরক্ষা সুনিশ্চিত করার কাজ শুরু হয়েছে। আগে ইউপিএ সরকার ছিল, মমতাও তাদের সমর্থন করেছিল। সে সময় পাকিস্তান থেকে মানুষ এদেশে ঢুকে যেত। আমাদের সেনাদের গলা কেটে নিয়ে যেত কিন্তু কেউ তার প্রতিবাদ করতো না। আর নরেন্দ্র মোদি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর সন্ত্রাসবাদীদের উচিত শিক্ষা দিচ্ছে। পুলওয়ামার ভেতর জঙ্গি হামলা হয়েছে, তাতে আমাদের ৪০ আধা-সামরিক সেনা নিহত হয়েছেন। ওই ঘটনার পরই পাকিস্তানে গিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে এসেছে।’ 

এসময় উপস্থিত মানুষের উদ্দেশে অমিতের প্রশ্ন ‘আপনারাই বলুন মোদিজি ভাল কাজ করেছেন কি না? উত্তর আসে হ্যাঁ। এরপরই মমতাকে নিশানা করে বিজেপি সভাপতি বলেন, ‘কিন্তু মমতা দিদির সেটা ভালো লাগেনি। ওরা কি মমতা দিদির চাচাতো-মাসতুতো ভাই হয় নাকি? আপনার এত কষ্ট হচ্ছে কেন? কংগ্রেস, বামেরা, মমতা সকলেই বলতে শুরু করলো পাকিস্তানে বোমা ফেলবেন না, জঙ্গিদের মারবেন না। ওদের সাথে আলোচনা করুন।’ 

সমাবেশ থেকেই অমিতের ফের প্রশ্ন ‘আপনারাই বলুন, আমাদের ৪০ জনকে হত্যা করলো তাদের সাথে সংলাপে বসা উচিত না বোমা ফেলা উচিত? মানুষের মধ্যে থেকেই উত্তর এল বোমা। 

এরপরই মমতাকে নিশানা করে অমিত শাহ আরো বলেন, ‘মমতা দিদি আপনি সন্ত্রাসবাদীদের সাথে ইলু ইলু (আই লাভ ইউ) করলে করতে পারেন কিন্তু এটা ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার, নরেন্দ্র মোদির সরকার-পাকিস্তান থেকে গুলি আসলে এখান থেকে গোলা যাবে। ইটের জবাব পাথর দিয়ে দেওয়া হবে। এটাই আমাদের সংকল্প। ভারতের সুরক্ষার জন্য ভোট ব্যাঙ্ক রাজনীতির সাথে কোনো আপোশ করা হবে না।’
 
এদিন একাধিক সভা করেন অমিত শাহ, সেই সাথে কলকাতায় মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানেও উপস্থিত ছিলেন তিনি। আর প্রতিটি অনুষ্ঠান থেকে অনুপ্রবেশ, এনআরসি, নাগরিকত্ব (সংশোধনী) বিল সহ একাধিক ইস্যুতে তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রীর কড়া সমালোচনা করেন তিনি। 


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য