শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:৩২

চার দিনের টেস্টের বিপক্ষে সাবেক বর্তমানেরা

ক্রীড়া ডেস্ক

শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন মাহেলা জয়াবর্ধনে। ক্রিকেট বিশ্বেরও সেরাদের তালিকায় ওপরের দিকে তার নাম। দ্বীপরাষ্ট্রের সাবেক অধিনায়ক এখন আইসিসির ক্রিকেট কমিটির সদস্য। অথচ তিনিও চাইছেন না চার দিনের টেস্ট ক্রিকেট। শুধু মাহেলা একাই নন, চার দিনের টেস্টের বিপক্ষে শচিন টেন্ডুলকার, কুমার সাঙ্গাকারা, ক্রিস গেইল, বিরাট কোহলি, ভারতের কোচ রবী শাস্ত্রী, শ্রীলঙ্কার কোচ মিকি আর্থাররাও। বঙ্গবন্ধু বিপিএল খেলতে আসা ক্যারিবীয় ক্রিকেট কিংবদন্তি গেইল স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন, চার দিন নয় পাঁচ দিনের ক্রিকেটকেই পছন্দ তার। ক্রিকেটাররা না চাইলেও ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেট বোর্ড অবশ্য চার দিনের টেস্ট ক্রিকেটকে স্বাগত জানিয়েছে। তবে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দুই প্রভাবশালী ক্রিকেট বোর্ড এখনো পক্ষে ও বিপক্ষে কিছু জানায়নি। ক্রিকেটারদের সংগঠন ফিকাহ চার দিনের টেস্টের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে।  কিছুদিন আগে ক্রিকেটের শাসক সংস্থা আইসিসি জানিয়েছে, ২০২৩ সালের টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ থেকে চার দিনের টেস্ট আয়োজন করবে। ১৮৭৭ সালে টেস্ট ক্রিকেটের যাত্রা শুরু। এরপর কখনো বিরতিহীন টেস্ট হয়েছে। মাঝে এক দিনের বিরতিসহ ছয় দিনের টেস্ট হয়েছে। চার দিনের টেস্ট সর্বশেষ হয়েছিল ১৯৭৪ সালে। যদিও ২০১৭ ও ২০১৯ সালে আইসিসির বিশেষ অনুমোদনে চার দিনের টেস্ট খেলেছে ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ডসহ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটারদের অনেকেই রাজি হচ্ছেন না। মাহেলা বলেন, ‘সভায় আমরা চার দিনের টেস্টের বিষয়টি আলোচনা করেছি। আমি জানি না কী হবে। তবে আমার ব্যক্তিগত মত, চার দিন নয়, পাঁচ দিনের টেস্ট।’ চার দিনের টেস্টের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে ‘ফেডারেশন অব ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেটার্স অ্যাসোসিয়েশন’ (ফিকাহ) জানতে চেয়েছে ক্যালেন্ডারে বাড়তি সময় আইসিসি কীভাবে ব্যবহার করবে।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড চার দিনের টেস্ট নিয়ে কিছুই বলেনি। কিন্তু দেশটির ক্রিকেট কোচ শাস্ত্রী টিভি চ্যানেল সিএনএন-নিউজি২৪কে বলেন, আইসিসির সিদ্ধান্ত ননসেন্স, ‘চার দিনের টেস্ট একটি ননসেন্স সিদ্ধান্ত। যদি এমনটি হয়, তাহলে আমরা লিমিটেড ওভারের টেস্টও খেলতে পারি।’ ক্যারিবীয় ড্যাসিং ওপেনার গেইল বলেন, ‘ক্রিকেটারে আমি শয়ের (১০৩) ওপর টেস্ট খেলেছি। কোনোটি তিন দিনে শেষ হয়েছে। কোনোটি চার-পাঁচ দিনেও হয়েছে। তার পরও আমি চার দিন নয়, পাঁচ দিনের টেস্টের পক্ষে।’     

চার দিনের টেস্টের বিষয়ে মার্চে বৈঠকে বসবে আইসিসি। সেখানেই হয়তো সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে। 


আপনার মন্তব্য