রবিবার, ৩ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ টা

ভারতকে হারানোর প্রেসক্রিপশন

আলফাজ আহমেদ, সাবেক ফুটবলার

ভারতকে হারানোর প্রেসক্রিপশন

জয় দিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করেছে বাংলাদেশ। কোচ ও ফুটবলারদের অভিনন্দন জানাই। শ্রীলঙ্কাকে হারানোর পর অনেকে বলছেন ম্যাচ জিতলেও মন ভরাতে পারেনি। এ কথা একেবারে হাস্যকর। কেননা শ্রীলঙ্কা এতটা দুর্বল নয় যে তাদের বিপক্ষে হেসে খেলে জিতবে। স্মরণ করিয়ে দিতে চাই ২০১৮ সালে ঢাকায় সাফ ফুটবলে মালদ্বীপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। অথচ তাদের সেমিফাইনাল খেলাটাই অনিশ্চিত ছিল। গ্রুপে পয়েন্ট ও গোল সমান থাকায় শ্রীলঙ্কাকে টসে হারিয়ে মালদ্বীপ শেষ চারে জায়গা করে নেয়। সুতরাং শ্রীলঙ্কাকে দুর্বল বলাটা ভুল হবে। শুরুতে জয় পেয়ে ফাইনালের রাস্তায় আছে জামালরা। ৪ অক্টোবর  যদি ভারতকে হারাতে পারে বাংলাদেশ তাহলে ফাইনালের আশা উজ্জ্বল হবে। এখন জয় পাবে কি না সেটাই সংশয়। ভারতকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাওয়া মানে মাঠে অতিরিক্ত চাপে থাকা। অস্বীকার করব না আমরাও যখন ভারতের বিপক্ষে লড়তাম চাপে ছিলাম। অথচ শক্তির দিক দিয়ে ভারত খুব এগিয়ে নেই। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের তিন ফাইনালই খেলেছি। ২০০৩ সালে মালদ্বীপকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হলেও ১৯৯৯ ও ২০০৫ সালে ভারতের কাছে হেরেছি। এবার অস্কার ব্রুজোন জাতীয় দলের দায়িত্ব নেওয়ায় খেলোয়াড়রা আত্মবিশ্বাসী। ভারতকে হারানোর মূল প্রেসক্রিপশন হচ্ছে ম্যাচে নির্ভয়ে খেলা। ওরাতো এশিয়ার পরাশক্তি নয়। জ্বলে উঠলে বিজয়ের পতাকা উড়বেই।

সর্বশেষ খবর