Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:১২
কৃষি সংবাদ
জনপ্রিয়তা পাচ্ছে কৃষকের স্কুল
নওগাঁ প্রতিনিধি
জনপ্রিয়তা পাচ্ছে কৃষকের স্কুল

কৃষকের স্কুল জনপ্রিয়তা পাচ্ছে নওগাঁর রানীনগরে। সেখানে ইন্টিগ্রেটেড ফার্ম ম্যানেজমেন্ট কম্পোনেন্ট (আইএফএমসি) প্রকল্পের আওতায় ৬ ইউপিতে এ স্কুল পরিচালিত হচ্ছে।

এতে হাতে-কলমে আধুনিক প্রযুক্তির কৃষি শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। ফলে বদলে যাচ্ছে কৃষি উৎপাদনের পুরনো ধরণ। রানীনগরের কৃষক মাঠ স্কুলের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেছেন শত শত কৃষাণ-কৃষাণি। তারা এ স্কুল থেকে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তির ওপর প্রশিক্ষণ নিয়ে বাস্তব জীবনে প্রয়োগ করছেন। এর ফলে কৃষি প্রযুক্তির আলো ছড়িয়ে পড়ছে প্রত্যন্ত এলাকায়। উন্নত হচ্ছে কৃষি সমাজ। বেকার যুবসমাজও খুঁজে পাচ্ছে কর্মসংস্থানের নতুন নতুন পথ। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, রানীনগর উপজেলায় আইএফএমসি প্রকল্পের আওতায় ৬টি ইউনিয়নে চলতি রবি মৌসুমে কৃষক মাঠ স্কুল পরিচালিত হচ্ছে। খট্টেশ্বর রানীনগর ইউপির খাগড়া, কাশিমপুর ইউপির কুজাইল দক্ষিণপাড়া, গোনা ইউপির কৃষ্ণপুর, বড়গাছা ইউপির মালশন, একডালা ইউপির পাকুরিয়া ও মিরাট ইউপির হরিশপুর গ্রামে এ স্কুল চালানো হচ্ছে। প্রতি স্কুলে সপ্তাহে দুই দিন বিকালে ২৫টি কৃষক পরিবারের ২৫ জন কৃষক ও ২৫ জন কৃষাণিকে কৃষি বিষয়ে শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা বসতবাড়িতে সবজি চাষ, ফল গাছের পরিচর্যা, আধুনিক পদ্ধতিতে ধান চাষ, গবাদি পশু পালন, মাছ চাষসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ পাচ্ছেন। তারা বিভিন্ন আবাদ ও গবাদি পশুর রোগবালাই সম্পর্কেও জানতে পারছেন। শিক্ষার্থীদের পাঠদানের জন্য কৃষি বিভাগ থেকে প্রদান করা হয়েছে বই, খাতা ও কলম। প্রতি স্কুলে কৃষি বিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত বেকার যুবক ও মেয়েরা শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠদান করছেন। রানীনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ গোলাম সারওয়ার বলেন, আধুনিক কৃষি পদ্ধতি ও প্রযুক্তি গ্রামের কৃষকদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্যই বর্তমান সরকার এ প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এ স্কুলের মাধ্যমে কৃষক পরিবার আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি ও পদ্ধতি সম্পর্কে হাতে-কলমে বাস্তব শিক্ষা গ্রহণ করতে পারছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow