শিরোনাম
১৪ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৬:৫০

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ

গাজীপুর প্রতিনিধি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণ

১৪ ডিসেম্বর শোকাবহ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। যথাযোগ্য মর্যাদা ও বিনম্র শ্রদ্ধায় জাতির শ্রেষ্ঠ মেধাবী সন্তানদের স্মরণ করলো বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়।

এ উপলক্ষে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা, কালো ব্যাজ ধারণ, পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোক র‌্যালি, আলোচনা এবং বিশেষ দোয়া মাহফিলের আায়োজন করা হয়।

ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. গিয়াসউদ্দীন মিয়ার নেতৃত্বে একটি শোক র‌্যালি ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এছাড়াও শিক্ষক সমিতি, গণতান্ত্রিক শিক্ষক পরিষদ, বঙ্গবন্ধু কর্মকর্তা পরিষদ ও বঙ্গবন্ধু কর্মচারী পরিষদ পুষ্পার্ঘ নিবেদন করে। 

পুষ্পার্ঘ শেষে বুদ্ধিজীবী দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. গিয়াসউদ্দীন মিয়া বলেন, বাঙালি জাতিকে নেতৃত্বশূন্য ও মেধাশূন্য করার জন্য অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও এদেশীয় দোসররা জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের নির্মম ও পৈশাচিকভাবে হত্যা করে। মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের দোসর পাকিস্তানী রাজনীতিবিদ ও সামরিক বাহিনী বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে নস্যাৎ করার জন্য চূড়ান্ত বিজয়ের ঠিক পূর্ব মূহূর্তে এই পরিকল্পিত হত্যাযজ্ঞ ঘটায়। বুদ্ধিজীবীসহ মহান মুক্তিযুদ্ধে নারকীয় হত্যাযজ্ঞ ঘটানোর জন্য পাকিস্তানকে বাঙালি জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার জন্য তিনি জোর দাবি জানান। 

আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর তোফায়েল আহমেদ, পরিচালক (ছাত্র কল্যাণ) প্রফেসর ড. মো. মাহবুবুর রহমান এবং শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. অহিদুজ্জামান প্রমূখ। বাদ যোহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার মাগফেরাত, দেশ-জাতির শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দিবসের সকল কর্মসূচিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, রেজিস্ট্রার, প্রক্টর, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। 

বিডিপ্রতিদিন/কবিরুল

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর