শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ১৭:২৭
প্রিন্ট করুন printer

সিলেটে পাথর তুলতে গিয়ে কিশোর শ্রমিকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেটে পাথর তুলতে গিয়ে কিশোর শ্রমিকের মৃত্যু
Google News

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ রেলওয়ের মালিকানাধীন সংরক্ষিত ব্যাংকারের জায়গায় অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে জহিরুল ইসলাম (১৭) নামের এক কিশোর শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। 

আজ বৃহস্পতিবার ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে কালবৈশাখী ঝড়ে পড়ে মারা যায় জহিরুল। সে সিলেটের জালালাবাদ থানার মানসিনগর (নোয়াগাঁও) গ্রামের মৃত ইউনূস আলীর ছেলে।  

এদিকে, জহিরুলের মৃত্যুর পরপরই প্রশাসনের ভয়ে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে স্থানীয় পাথরখেকো চক্র। ঘটনাটি তারা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। তবে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, কোম্পানীগঞ্জের উত্তর কলাবাড়ী গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে রাসেল ও পাড়ুয়া গ্রামের বিল্লাল মিয়ার ছেলে কেফায়েত এবং তাদের সহযোগীরা দীর্ঘদিন থেকে ভোলাগঞ্জের রেলওয়ের সংরক্ষিত বাঙ্কার থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করে আসছে। তাদের নির্দেশে পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে বৃহস্পতিবার ভোরে কালবৈশাখী ঝড়ের কবলে পড়ে জহিরুল ইসলাম নামের ওই কিশোর শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি কেএম নজরুল ইসলাম বলেন, ওই এলাকার বিভিন্ন গর্তে থাকা বালুর ভেতর থেকে কিছু শ্রমিক চিপ পাথর (ছোট পাথর) উত্তোলন করে। বৃহস্পতিবার ভোরে জহিরুল ইসলাম নামের ওই কিশোর পাথর উত্তোলন করতে গিয়ে কালবৈশাখীর কবলে পড়ে মারা যান। পরে একটি চক্র লাশ তার বাড়িতে পাঠিয়ে দিলেও পুলিশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর