শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ জুন, ২০২১ ১৭:৪০
প্রিন্ট করুন printer

চট্টগ্রামে ৬৪৯ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে ৬৪৯ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর
Google News

চট্টগ্রাম জেলার ১৩টি উপজেলা দ্বিতীয় পর্যায়ে ভূমি ও গৃহহীন ৬৪৯টি পরিবারকে গৃহ প্রদান করা হবে। আগামী ২০ জুন প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন ভূমিহীন ও গৃহহীন ৬৪৯টি পরিবারকে জমিসহ ঘরের মালিকানা হস্তান্তর করবে।

আজ বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান এসব তথ্য জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ নাজমুল আহসান ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সুমনী আক্তার।

এবার চট্টগ্রামের ১৩টি উপজেলায় মোট ৬৪৯টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে গৃহ প্রদান করা হবে। এর মধ্যে রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় ৫০টি, পটিয়ায় ৩০টি, চন্দনাইশে ২৭টি, সাতকানিয়ায় ১০টি, লোহাগাড়ায় ৫০টি, বাঁশখালীতে ১৪টি, কর্ণফুলীতে ৫টি, বোয়ালখালীতে ২০টি, রাউজানে ২৪৮টি, হাটহাজারীতে ১০টি, আনোয়ারায় ৫০টি, মীরসরাইয়ে ২৫টি, সীতাকুণ্ডে ১০টি।

তৈরিকৃত ঘরগুলোতে আছে ২টি বেডরুম, ১টি রান্না ঘর, বারান্দা, বাথরুম। এছাড়াও ১০টি ঘরের জন্য একটি করে গভীর নলকূপ স্থাপন করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে একটি ঘর নির্মাণকাজ সম্পন্ন করতে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় পর্যায়ের জন্য ১ লাখ ৯০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।       

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, ‘মুজিব শতবর্ষে একজন লোকও গৃহহীন থাকবে না’ শীর্ষক প্রতিপাদ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প, সারাদেশে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদান কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। এরই ধারাবাহিকতায় প্রথম পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি সারাদেশে ৬৯ হাজার ৯০৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ ঘর বরাদ্দ প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। প্রথম পর্যায়ে চট্টগ্রাম জেলায় এক হাজার ৪৪৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর প্রদান করা হয়।

তিনি বলেন, দুই ক্যাটাগরিতে ঘর দেয়া হচ্ছে। যাদের ভূমি ও ঘর দুটিই নেই এবং যাদের জমি আছে কিন্তু থাকার ঘর নেই। যাদের ভূমি ও ঘর দুটিই নেই এমন ৯ হাজার ১২৪ জনের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। এর মধ্যে সরকারিভাবে ২ হাজার ৯৯ জন ও বেসরকারিভাবে ১২৩ জনকে ঘর বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। আগামী এক বছরের মধ্যে সবাইকে ঘর করে দেয়া হবে। জমি আছে ঘর নেই এমন ৭ হাজার ৪৭৮ জনের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। কার্যক্রম এখনো শুরু হয়নি।

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর