৫ অক্টোবর, ২০২১ ১৬:৫৬

চসিকে নিয়মবহির্ভূত পদোন্নতিতে দুই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে তদন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চসিকে নিয়মবহির্ভূত পদোন্নতিতে দুই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে তদন্ত

ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে (চসিক) নিয়ম বহির্ভূতভাবে দুই প্রকৌশলীকে পদোন্নতি দেওয়ায় তদন্তপূর্বক সুস্পষ্ট মতামতসহ প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। গত রবিবার স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সিটি কর্পোরেশন-২ শাখার উপ-সচিব স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়।

চসিকের দুই কর্মকর্তা হলেন- বর্তমানে নির্বাহী প্রকৌশলীর (যান্ত্রিক) দায়িত্ব পালন করা মির্জা ফজলুল কাদের এবং জয়সেন বড়ুয়া। তারা চসিকে ট্রান্সপোর্ট সহকারী পদে চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন।

জানা যায়, গত রবিবার স্থানীয় সরকার শাখা থেকে ‘চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে কর্মরত মির্জা ফজলুল কাদের ও জয়সেন বড়ুয়াকে নিয়ম বহির্ভূতভাবে নির্বাহী প্রকৌশলী পদে পদোন্নতি প্রদান’ শীর্ষক চিঠি দেয়া হয়। চিঠিতে বলা হয়, চসিকে কর্মরত মির্জা ফজলুল কাদের ও জয়সেন বড়ুয়াকে নিয়ম বহির্ভূতভাবে নির্বাহী প্রকৌশলী পদে পদোন্নতি প্রদানের বিষয়ে অনিয়মের অভিযোগটি দুর্নীতি দমন কমিশন হতে পাওয়া যায়। উক্ত অভিযোগটি তদন্তপূর্বক সুস্পষ্ট মতামতসহ প্রতিবেদন প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়।’ 

চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম বলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে গতকাল একটা চিঠি পেয়েছি। মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মতে আমরা সুষ্ঠু তদন্ত করে মতামতসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। চসিক সূত্রে জানা যায়, ১৯৯০ সালের ২১ মার্চ চসিক ট্রান্সপোর্ট সহকারী হিসেবে যোগদান করেন মির্জা ফজলুল কাদের ও জয়সেন বড়ুয়া। তখন বেতন নির্ধারিত ছিল ৮৫০-১৭০০ টাকা। একই সঙ্গে ২০০১ সালের সিটি কর্পোরেশনের এক আদেশে ওই দুই কর্মকর্তা ছাড়াও যান্ত্রিক শাখার পুল সহকারীগণকে ৩৪০০-৬৬২৫ টাকায় বেতন স্কেল প্রদান করে দ্বিতীয় শ্রেণীর পদমর্যাদায় উন্নীত করার নির্দেশ দিয়ে একটি অফিস আদেশ জারি করে চসিক। 

পরে ১৯৯৪ সালের ৩ ডিসেম্বর চসিক এক অফিস আদেশে উল্লেখ করা হয়, সিটি কর্পোরেশনে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডিপ্লোমাধারী উপ-সহকারী প্রকৌশলী ও সমমানের পদসমূহের বেতন স্কেল ২৩০০-৪৪৮০ টাকা। অথচ এই দুই কর্মকর্তা যান্ত্রিক শাখার প্রকৌশলী পদে নিয়োগপ্রাপ্ত না হয়েও গত ৩০ বছর ধরে ডিপ্লোমাধারী প্রকৌশলীর স্কেলে বেতন-ভাতা ভোগ করছেন। ১৯৮৮ সালের সরকারি চাকরি-বিধি অনুসারে তাদের বেতন নির্ধারণ হয় ৮৫০-১৭০০ টাকা। এ পদে যোগদানকারী কর্মকর্তার সর্বোচ্চ পদোন্নতি হওয়ার কথা ‘উপ-সহকারী প্রকৌশলী’ হিসেবে।

তবে পদোন্নতিতে এমন অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে ২০১০ সালের ৫ আগস্ট মির্জা ফজলুল কাদেরকে যান্ত্রিক শাখার পুল সহকারী এবং জয়সেন বড়ুয়াকে পুল সহকারী হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। একই সঙ্গে ওই আদেশে বলা হয়, পুনরায় আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত তাদের দুজনকে স্বপদে বদলি করা হল। তবুও কয়েক বছর আগে এ দুই কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।    

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর